গাইড নিষিদ্ধ, কোচিং বৈধ তবে বাণিজ্য করা যাবে না

নিজস্ব প্রতিবেদক।।

দীর্ঘ দিন পর অবশেষে শিক্ষা আইনের খসড়া চূড়ান্ত করা হয়েছে। গতকাল বুধবার সচিবালয়ে মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিবের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ বৈঠকে আইনের খসড়া চূড়ান্ত করা হয়। চূড়ান্ত খসড়াটি আগামী সপ্তাহে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগে পাঠানো হবে। বৈঠকের পর মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব মো: আবু বকর ছিদ্দীক সাংবাদিকদের এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

বৈঠক সূত্রে জানা গেছে, চূড়ান্ত করা এই খসড়ায় নতুন করে তেমন কিছু যোগ করা হয়নি। তবে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের দেয়া নির্দেশনা অনুযায়ী প্রস্তাবিত আইনটি অন্য আইনের সঙ্গে সাংঘর্ষিক কি না তা খতিয়ে দেখা হয়েছে।
বৈঠকের পর মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা বিভাগের সচিব মো: আবু বকর ছিদ্দীক বলেন, খসড়াটি শিক্ষা সংক্রান্ত অন্য আইনের সঙ্গে সাংঘর্ষিক কি না তা দেখার নির্দেশনা দিয়েছিল মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ। সেটা দেখা হয়েছে।

খসড়া চূড়ান্ত হয়েছে, আর বৈঠক প্রয়োজন হবে না। আগামী সপ্তাহে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগে খসড়াটি পাঠানো হবে। নোট-গাইড থাকবে কি না জানতে চাইলে সচিব বলেন, নোট-গাইড নিষিদ্ধ তবে, সহায়ক বই থাকবে। সচিব জানান, খসড়ায় তেমন কোনো পরিবর্তন হয়নি। কোচিং সেন্টার থাকছে কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন, বাণিজ্যিকভাবে কোচিং বন্ধ। বৈঠক সূত্রে জানা গেছে, বাসা ভাড়া নিয়ে শিক্ষার্থীদের বাণিজ্যিকভাবে কোচিং করানো যাবে না।

শিক্ষা মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, নীতিমালা অনুযায়ী একজন শিক্ষক অন্য বিদ্যালয়ের ১০ জন শিক্ষার্থীকে পড়াতে পারবেন। তবে নিজের বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের পড়াতে পারবেন না। বিদ্যালয়ের ক্লাসের সময়ও শিক্ষকরা প্রাইভেট পড়াতে পারবেন না।