গণতন্ত্রের সাইকেল এক চাকায় চলছে

সৈয়দ আনোয়ার হোসেন।।

জীবন থেকে ঝরে গেল আরেকটি বছর, ২০২১ সাল। সদ্যবিদায়ী ২০২১ সালে দেশে কোনো রাজনীতি ছিল না। রাজনীতির মানে জনগণের কল্যাণ করা। সেই দিক থেকে সরকারের পক্ষে বেশ কিছু উদ্যম লক্ষ্য করা গেছে। কিন্তু গণতন্ত্র যদি দুই চাকার সাইকেল হয়, তাহলে ২০২১ সালে আমরা অর্থাৎ জাতি সেই সাইকেলের একটিমাত্র চাকা দেখেছি। আরেকটি এক চাকা একেবারেই সচল ছিল না। বরং পুরোপুরি নিষ্ক্রিয় ছিল। সেই দিক থেকে বিবেচনা করলে সদ্যবিদায়ী বছর ২০২১ সালে আমি কোনো রাজনীতি দেখি না।

তবে মানুষ আশায় বাঁচে। নতুন বছর ২০২২ সালে রাজনীতিকে সচল দেখতে চাই আমরা। যদিও রাজনীতির সচলতা নিয়ে আমার মনে বেশ কিছু সংশয় রয়েছে। কারণ রাজনীতি তো আর একদিনে গড়ে ওঠে না। দীর্ঘদিনের পুঞ্জীভূত ফসল হচ্ছে রাজনীতি। কিন্তু বাংলাদেশে এখন রাজনীতি ধসে গেছে। কারণ নেতৃত্ব বলে কিছু নেই।

উল্টো বাংলাদেশের রাজনীতি হচ্ছে- ক্ষমতায় থাকাকে দীর্ঘায়িত করা আর ক্ষমতায় যাওয়ার উদাগ্র কামনা। এই হচ্ছে আমাদের রাজনীতি। সেসব দিক বিবেচনায় ২০২২ সালে রাজনীতির কোনো গুণগত পরিবর্তন হবে কিনা তা আমি জানি না। তবে আশাটা তো ধরে রাখতে চাই। মানুষ তো সব সময় আশা নিয়েই বাঁচে। প্রত্যাশা যদি থাকে, প্রাপ্তি নিশ্চিত করার উদ্যোগ আমাদের নিতে হবে। রাজনীতিকে সচল করার প্রতিজ্ঞা থাকতে হবে।

আমার মতে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় দুর্বলতার জায়গাটি হচ্ছে সুশীল সমাজের নিষ্ক্রিয়তা। দেশে সুশীল সমাজের কোনো ভ‚মিকা আমি দেখছি না। যার ফলে সব কিছুতেই আমার সংশয় জাগে। সুশীল সমাজ সক্রিয়, সজীব না থাকলে কোনো দেশে গণতন্ত্র গড়ে ওঠে না। বাংলাদেশের সংকটটা সেখানেই রয়ে গেছে। এক্ষেত্রে সুশীল সমাজকে গা ঝাড়া দিয়ে উঠতে হবে বলে আমি মনে করি।

নতুন বছর আসে অমিত সম্ভাবনা নিয়ে। সেই সম্ভাবনায় বসতি গড়ে আমরা নতুন স্বপ্ন দেখি। নতুন বছরে রাজনীতি সচল হোক, এগিয়ে যাক মানব কল্যাণে। সবাই ভালো থাকুক। নতুন বছর ভালো কাটুক। সবাইকে নতুন বছরের শুভেচ্ছা।