ক্যান্সারে আক্রান্ত মাদ্রাসা ছাত্রী তানজিলা বাঁচতে চায়

শিক্ষাবার্তা ডেস্কঃ অভাবের সংসারে হাল ধরার স্বপ্ন নিয়েই বেড়ে ওঠা। স্বপ্নপূরণে এগাচ্ছেনও ঠিক। বয়স সতেরোতে এসে পার করেছেন মাধ্যমিকের গণ্ডিও। ঠিক এমন মুহূর্তেই স্বপ্নের পথে বাগড়া দেয় মরণব্যাধি ক্যান্সার। উচ্চশিক্ষার আশা বাদ দিয়ে এখন সময় কাটছে হাসপাতালের বিছানায়। সংসারে টানাপোড়েন থাকায় চিকিৎসাও চলছে না ঠিকমতো।

বলছি ১৭ বছর বয়সী তানজিলা আক্তারের কথা। তার বাড়ি ভোলার লালমোহন উপজেলার পশ্চিম চরউমেদ ইউনিয়নের গজারিয়া বাজার এলাকায়। তিনি একই এলাকার নাছিরের মেয়ে।

ব্লাড ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে গত এক মাস ধরে ঢাকার জাতীয় ক্যান্সার গবেষণা ইনস্টিটিউট হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন তানজিলা। তবে ভর্তি থাকলেও নেই অর্থ। ফলে থমকে আছে সেবা।

আট বছর আগে মারা যান তানজিলার বাবা। স্বামী হারানোর পর চার মেয়েকে নিয়ে অভাব-অনটনে সংসার চালাচ্ছেন রোকেয়া বেগম। চার বোনের মধ্যে তানজিলা তৃতীয়। ২০২২ সালে গজারিয়ার স্থানীয় একটি মাদরাসা থেকে দাখিল পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হন তিনি। তবে দুই বোনের বিয়ে হয়েছে আগেই।

তানজিলার মামা হেলাল উদ্দিন বলেন, প্রায় তিন মাস ধরে জ্বরসহ বিভিন্ন শারীরিক সমস্যায় ভুগছিল তানজিলা। এরপর ঢাকায় ডাক্তারের পরামর্শে পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর তার ক্যান্সার ধরা পড়ে। কিন্তু টাকার অভাবে চিকিৎসা চালাতে পারছেন না তার মা। আমাদেরও তেমন সামর্থ্য নেই।

মা রোকেয়া বেগম বলেন, স্বামী মারা যাওয়ার পর মানুষের সহায়তায় কোনোরকমে চলছে সংসার। এর মধ্যে তানজিলার ক্যান্সার ধরা পড়ে। তার চিকিৎসার জন্য অনেক টাকার প্রয়োজন। দীর্ঘদিন ধরে হাসপাতালে ভর্তি রয়েছি। টাকার জন্য চিকিৎসা করাতে পারছি না। চোখের সামনেই যেন বিনা চিকিৎসায় মেয়েটিকে হারিয়ে ফেলবো।

তিনি বলেন, দেশে অনেক বিত্তবান রয়েছেন। তাদের মধ্যে কয়েকজন আমার মেয়ের পাশে দাঁড়ালে চিকিৎসা করাতে পারবো। তাই আমার মেয়ের পাশে দাঁড়ানোর অনুরোধ বিত্তবানদের কাছে।

চিকিৎসার জন্য তানজিলার মামা হেলাল উদ্দিনের ০১৬২৮-৬৬৫৪৮৪ নম্বরে সাহায্য বা যোগাযোগের অনুরোধ করেন রোকেয়া বেগম। একই নম্বরে পার্সোনাল বিকাশও রয়েছে। এছাড়া তানজিলার মায়ের বিকাশ নম্বরেও ০১৭৪০-৮৩৪১৮১ পাঠানো যাবে সাহায্য।

শিক্ষাবার্তা ডট কম/এএইচএম/০১/২৩/২৩