কুড়িগ্রামে এসএসসি’র প্রশ্ন ফাঁস: দুই সহকারী শিক্ষক রিমান্ডে

নিউজ ডেস্ক।।

কুড়িগ্রামের ভুরুঙ্গামারীতে এসএসসি পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁসের ঘটনায় নেহাল উদ্দিন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের দুই সহকারী শিক্ষককে দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

রিমান্ডপ্রাপ্তরা হলেন, আমিনুর রহমান রাসেল ও জোবায়ের হোসেন।

রোববার সকাল সাড়ে ১০টায় চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক মো. সুমন আলী শুনানি শেষে এ আদেশ দেন। ২৯ সেপ্টেম্বর মামলার তদন্ত কর্মকর্তা আজহার আলী ওই দুই আসামির তিন দিনের রিমান্ড চাইলে আদালত আজ দুই দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

এ ছাড়া মামলার প্রধান আসামি নেহাল উদ্দিন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের কেন্দ্র সচিব ও প্রধান শিক্ষক লুৎফর রহমানের তিন দিনের রিমান্ড শেষ হলে তাকে জেলহাজতে পাঠানো হয়।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ও ভুরুঙ্গামারী থানার পুলিশ পরিদর্শক তদন্ত আজহার আলী বলেন, আজ রিমান্ড শুনানি ছিলো। অভিযুক্ত দুই শিক্ষক আমিনুল ইসলাম ও জোবায়ের হোসেনের দু-দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

তিনি আরও বলেন এর আগে কেন্দ্র সচিব ও প্রধান শিক্ষক লুৎফর রহমানের তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত। তবে মামলার স্বার্থে আমাদের তদন্ত চলমান থাকবে।

গত ২০ সেপ্টেম্বর প্রশ্নপত্র ফাঁসের ঘটনায় ওই দিন রাতে ৪ জনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাতনামা ১০/১২ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেন নেহাল উদ্দিন পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ট্যাগ কর্মকর্তা ও উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা আদম মালিক চৌধুরী।

প্রশ্ন ফাঁসে জড়িত থাকায় ভুরুঙ্গামারী থানা-পুলিশ নেহাল উদ্দিন বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের কেন্দ্র সচিব ও প্রধান শিক্ষক, চারজন সহকারী শিক্ষক, একজন অফিস সহকারী ও একজন অফিস পিয়নসহ মোট ৬ জনকে গ্রেপ্তার করে।