কলেজ শিক্ষকদের যে অনুশাসন যথাযথ মানার নির্দেশ মাউশির

কলেজ শিক্ষকদের এসিআরের অনুশাসন যথাযথ মানার নির্দেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকাঃ বার্ষিক গোপনীয় অনুবেদনের (এসিআর) অনুশাসন যথাযথভাবে মানছেন না অনেক  কলেজের শিক্ষক। সে কারণে যথাযথভাবে তা মানার নির্দেশ দিয়েছে মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদদফতর। রবিবার (১৫ জানুয়ারি) এই নির্দেশনা দেন অধিদফতরের পরিচালক (কলেজ ও প্রশাসন) অধ্যাপক শাহেদুল খবির চৌধুরী।

এতে বলা হয়, গ্রেড বা শ্রেণি নির্বিশেষে সব কর্মচারীর জন্য বিদ্যমান এসিআর সংক্রান্ত অনুশাসন অনুসরণ করা বাধ্যতামূলক। কিন্তু লক্ষ্য করা যাচ্ছে, অনেকেই এসিআর দাখিল, অনুবেদন এবং প্রতিস্বাক্ষর করার ক্ষেত্রে অনুশাসন অনুসরণ করছেন না। ফলে পদোন্নতি, স্থায়ীকরণ, অন্যত্র চাকরির আবেদন, উচ্চতর স্কেল প্রাপ্তিসহ অনেক ক্ষেত্রেই সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তা, কর্মচারী ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন, যা কাম্য নয়। এমতাস্থায় বিশেষভাবে গুরুত্বপূর্ণ অনুশাসনমালা যথাযথভাবে অনুসরণ করার জন্য অনুরোধ করা হলো।

অনুবেদনাধীন কর্মকর্তা/কর্মচারীকে ৩১ জানুয়ারির মধ্যে বার্ষিক গোপনীয় অনুবেদন ফরম যথাযথভাবে পূরণ করে অনুবেদনকারী কর্মকর্তার কাছে দাখিল করে প্রমাণপত্র সংরক্ষণ করতে হবে।

অনুবেদনকারী কর্তৃক বার্ষিক গোপনীয় অনুবেদন ফরম যথানিয়মে অনুবেদন করে খামে গোপনীয়তা নিশ্চিত করে ফেব্রুয়ারির মধ্যে প্রতিস্বাক্ষরকারী কর্মকর্তার দফতরে পাঠাতে হবে।

প্রতিস্বাক্ষরকারী যথানিয়মে প্রতিস্বাক্ষর সম্পন্ন করে সিলগালা করে দামে গোপনীয়তা নিশ্চিত করে ৩১ মার্চের মধ্যে ডোসিয়ার সংরক্ষণকারী কর্তৃপক্ষের দফতরে পৌঁছাতে হবে।

এ সময়ের পরে এসিআর অনুবেদন করা এবং প্রতিস্বাক্ষরিত না হলে তা সরাসরি বাতিল বলে গণ্য হবে।

অনুবেদনাধীন, অনুবেদনকারী ও প্রতিস্বাক্ষরকারী প্রত্যেকেই এসিআর ফরম এ তার জন্য নির্ধারিত অংশ যথাযথভাবে পূরণ করে স্বাক্ষর, সিল দিয়ে ও প্রযোজ্য ক্ষেত্রে আগের পদবি, কর্মস্থল ও তারিখ আবশ্যিকভাবে লিপিবদ্ধ করবেন। এই ক্ষেত্রে কোনও অংশে কোনও ভুল তথ্য উল্লেখ করলে কিংবা অসাবধানতাবশত ভুল করলে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাই দায়ী থাকবেন। কোনও কলাম ফাকা রাখা যাবে না। তবে কোনও কলাম প্রযোজ্য না হলে সেক্ষেত্রে ‘প্রযোজ্য নয়’ লিখে পূরণ করবেন। এসিআর এর সব অংশ কাটাছেঁড়াবিহীন ও সঠিকভাবে পূরণ করতে হবে। অসম্পূর্ণ বার্ষিক গোপনীয় অনুবেদন সরাসরি বাতিল বলে গণ্য হবে।

কোনও কর্মস্থলে অনুবেদনকারী কর্মকর্তার অধীনে কর্মকাল তিন মাস হলেই বার্ষিক গোপনীয় অনুবেদন প্রযোজ্য হবে।

কোনোভাবেই বার্ষিক গোপনীয় অনুবেদন ফরম পূরণ ও লেখায় ওভার রাইটিং, কাটাকাটি, ঘষামাজা, ফ্লুইড, লাল কালি ব্যবহার করা যাবে না। অনুবেদনকারী বা প্রতিস্বাক্ষরকারী উভয় কর্মকর্তাকে দেওয়ার নম্বর অঙ্কে লেখার পাশাপাশি কথায় লিখতে হবে। বিরূপ মন্তব্যের আগে অনুবেদনাধীন কর্মকর্তা/কর্মচারীকে অবশ্যই লিখিতভাবে সতর্ক করে সংশোধনের সুযোগ দিতে হবে। গোপনীয় অনুবেদন অনুশাসনমালা অনুসরণ করে বিরূপ মন্তব্য দেওয়ার পক্ষে সতর্কীকরণ নোটিশের কপিসহ দালিলিক তথ্য প্রমাণ সংযুক্ত করতে হবে।

শিক্ষাবার্তা ডট কম/এএইচএম/০১/১৫/২৩