ইজতেমা সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে কথা দিয়েছেন ২ পক্ষঃ আইজিপি

অনলাইন ডেস্ক।।

গাজীপুরের টঙ্গীতে বিশ্ব ইজতেমার শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতি দেখতে বুধবার সেখানে যান পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) চৌধুরী আব্দুল্লাহ আল-মামুন। ইজতেমা মাঠের বিভিন্ন অংশ ঘুরে দেখেন ও মুসল্লিদের সঙ্গে কথা বলেন তিনি। পরে গণমাধ্যমকর্মীদের সঙ্গে কথা বলেন।

ইজতেমায় যথাযথ নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়া হবে জানিয়ে আইজিপি বলেন, ‘আমরা ইজতেমার উভয়পক্ষের সঙ্গে বসেছি, কথা বলেছি। তাদের মধ্যে যে মতবিরোধ, সেটা নিরসনের আহ্বান জানিয়েছি। তারা আমাদের কথা দিয়েছেন, এ অনুষ্ঠান সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করতে একপক্ষ অপরপক্ষকে সহযোগিতা করবে। আমি বিশ্বাস করি, আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি সমুন্নত রাখতে উভয়পক্ষ আমাদের সহযোগিতা করবে। তাদের ওপর আস্থা রাখতে চাই।’

দেশের নির্বাচনে দায়িত্ব পালন প্রসঙ্গে পুলিশপ্রধান বলেন, ‘আগামী দিনেও নির্বাচনী দায়িত্ব সফলভাবে পালন করতে সক্ষম হব বলে আমরা দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি। আইনশৃঙ্খলা সংক্রান্ত যে কোনো চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করার সক্ষমতা, দক্ষতা ও প্রশিক্ষণ আমাদের আছে।’

এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন পুলিশের বিশেষ শাখার (এসবি) প্রধান মনিরুল ইসলাম, ট্যুরিস্ট পুলিশের প্রধান হাবিবুর রহমান, গাজীপুর মহানগর পুলিশ কমিশনার মোল্যা নজরুল ইসলাম প্রমুখ।

গাজীপুরে স্বাস্থ্য বিভাগের ছুটি বাতিল: বিশ্ব ইজতেমায় আসা মুসল্লিদের সেবা দিতে গাজীপুরের বিভিন্ন হাসপাতালে কর্মরত চিকিৎসক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের ছুটি বাতিল করেছে স্বাস্থ্য বিভাগ। আজ থেকে ২৩ জানুয়ারি পর্যন্ত এ আদেশ বহাল থাকবে। টঙ্গীর শহীদ আহসান উল্লাহ মাস্টার জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক জাহাঙ্গীর আলমের সই করা নোটিশ থেকে এ তথ্য জানা যায়।

জাহাঙ্গীর আলম বলেন, ইজতেমা উপলক্ষে ফ্রি মেডিকেল ক্যাম্পের ব্যবস্থা করা হয়েছে। এ ছাড়া টঙ্গী হাসপাতালে বিভিন্ন চিকিৎসাসেবা কার্যক্রম চলবে। ইজতেমা উপলক্ষে এ হাসপাতালে সাতটি বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক দল থাকবে।

শুক্রবার শুরু হয়ে ১৫ জানুয়ারি আখেরি মোনাজাতের মধ্য দিয়ে প্রথম পর্বের (জুবায়েরপন্থি) বিশ্ব ইজতেমা শেষ হবে। চার দিন বিরতি দিয়ে ২০ জানুয়ারি দিল্লির নিজামুদ্দিন মারকাযের অনুসারী (সাদপন্থি) মুসল্লিরা ইজতেমার দ্বিতীয় পর্বে অংশ নেবেন। ২২ জানুয়ারি আখেরি মোনাজাতের মাধ্যমে এবারের ইজতেমার সমাপ্তি ঘটবে।