ঈদের দিনেও বেশি ভাড়া দিয়ে ঢাকা ছাড়ছে মানুষ

প্রকাশিত: ৮:৩৭ অপরাহ্ণ, শুক্র, ১৪ মে ২১

অনলাইন ডেস্ক।।

করোনা মহামারির মধ্যে দেশজুড়ে উদযাপন করা হচ্ছে ঈদুল ফিতর। করোনার দ্বিতীয় ঢেউ নিয়ন্ত্রণে ঈদে ঘরমুখো মানুষের ঢল থামাতে গণপরিবহন চলাচল বন্ধ রেখেছিল সরকার। কিন্তু তারপরও থামানো যায়নি মানুষের ঢল। এ অবস্থায় বিধিনিষেধ শিথিলে বাধ্য হয় সরকার। গত এক সপ্তাহ ধরে ঢাকা ছাড়ছে মানুষ। যা আজ ঈদের দিনও অব্যাহত ছিল।

শুক্রবার রাজধানীর গাবতলী ও আমিনবাজার এলাকায় দেখা যায়, পিকআপ, প্রাইভেটকার, মাইক্রোবাস ও মোটরসাইকেলে চড়ে ঢাকা ছাড়ছে ঘরমুখো মানুষ।

মো. রাজন মিয়া রাজধানীতে নিরাপত্তারক্ষী হিসেবে কাজ করেন। ঈদের নামাজ পড়ে রওনা হয়েছেন গ্রামের বাড়ি রাজবাড়ীর উদ্দেশে। তিনি বলেন, পরিবারের মা-বাবার সঙ্গে ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করতে যাচ্ছি। আগামী পরশুদিন আবার কর্মস্থলে যোগ দিতে হবে। বাড়ির মালিককে বলে আজ এবং কাল ছুটি নিয়েছি। মালিকের অনুমতি পেয়েই বাড়ির পথে রওনা হয়েছি। এখান থেকে ঘাটে যাব। তারপর নদী পার হলেই রাজবাড়ী। তবে এখান থেকে বাসে পাটুরিয়া যেতে জনপ্রতি ভাড়া ৪০০ টাকা চাচ্ছে। স্বাভাবিক সময় গাবতলী থেকে পাটুরিয়া যেতে ১০০ টাকার মতো লাগে।

সরজমিনে দেখা যায়, ঈদ উপলক্ষে সরকারের দেয়া নির্দেশনা অমান্য করে সাধারণ মানুষ যে যেভাবে পারছে ঢাকা ছেড়ে গ্রামে যাচ্ছে। তবে গণপরিবহন না চলায় ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে যাত্রীদের। ঈদের দিন ঢাকা ছেড়ে যাওয়া এসব মানুষের অধিকাংশই শ্রমজীবী।

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.