ইডেনের অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে ৬ ঘন্টা ছাত্রী আটকে রাখার অভিযোগ

অনলাইন ডেস্ক।।

ইডেন মহিলা কলেজের বিতর্ক যেন পিছু ছাড়ছে না। এবার অধ্যক্ষের রুমে এক ছাত্রীকে দীর্ঘ ৬ ঘণ্টা আটকে রেখে নির্যাতন ও হেনস্তার অভিযোগ উঠেছে। গণমাধ্যমে বক্তব্য দেয়ায় তাকে ডেকে নিয়ে এই নির্যাতন করা হয় বলে অভিযোগ করেন ভুক্তভোগী ছাত্রী নুসরাত জাহান কেয়া। গতকাল সোমবার দুপুর ১টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত অধ্যক্ষের রুমে তাকে আটকে রাখা হয় বলে জানান তিনি। কেয়া ইডেন কলেজের মার্কেটিং বিভাগের স্নাতকোত্তর শ্রেণির শিক্ষার্থী। একইসঙ্গে ছাত্র অধিকার পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন।

কেয়া গণমাধ্যমকে বলেন, ইডেন কলেজ ছাত্রলীগের নেত্রীদের অপকর্ম নিয়ে গণমাধ্যমে বক্তব্য দেয়ার কারণেই আমাকে আটকে রেখে মানসিক নির্যাতন করা হয়েছে। সোমবার দুপুরে সার্টিফিকেট উত্তোলনের জন্য বিভাগে গেলে শিক্ষকরা আমাকে অধ্যক্ষের রুমে নিয়ে যান। সেখানে দুপুর ১টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত আমাকে আটকে রাখেন।

তিনি আরও বলেন, অধ্যক্ষের রুমে বিভিন্ন পর্যায়ের প্রায় ৩৫ জন শিক্ষক মিলে আমাকে নানাভাবে হেনস্তা করেন। একপর্যায়ে হুমকি দিয়ে জোর করে লিখিত নেন। পরে আমি অসুস্থ হয়ে পড়লে আমার বাবাকে ফোন দিয়ে জানানো হয় এবং কলেজে এসে আমাকে নিয়ে যেতে বলেন।

কিন্তু বাবা-মা গ্রামে থাকায় স্থানীয় অভিভাবকে ডেকে নিয়ে মুচলেকা দিয়ে ছাড়া হয়েছে। শিক্ষকদের এমন জঘন্য কাজে আমি তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই।এর আগেও তাকে সার্টিফিকেট আটকে দেয়া ও ছাত্রত্ব বাতিলের হুমকি দেয়া হয়েছিল বলে অভিযোগ করেন কেয়া।

এসব ঘটনার কারণ জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমার অপরাধ হচ্ছে- আমি ক্যাম্পাসে ছাত্রলীগের দুইপক্ষের কোন্দল-সংঘর্ষের প্রতিবাদে ২৬ সেপ্টেম্বর সমাবেশে বক্তব্য দিয়েছিলাম।

এবিষয়ে গণমাধ্যমে কথা বলতে রাজি হননি ইডেন মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক সুপ্রিয়া ভট্ট্যাচার্য।