অমর একুশে বইমেলার প্রস্তুতি শুরু

প্রকাশিত: ৩:০৭ অপরাহ্ণ, শনি, ২৭ ফেব্রুয়ারি ২১

নিউজ ডেস্ক।।

এগিয়ে আসছে একুশে বইমেলার ক্ষণ। সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে শ্রমিকদের কাজের গতি দেখেও সেটাই বোঝা যায়।

খোঁড়াখুঁড়ি, হাতুড়ি-পেরেকের ঠোকাঠুকি এবং রঙ-ব্রাশের মাখামাখিই বলে দিচ্ছে দরজায় কড়া নাড়ছে বাঙালির প্রাণের মেলা— অমর একুশে গ্রন্থমেলা।

শুক্রবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ঘুরে দেখা যায়, দীর্ঘ এক মাসের এ আয়োজন সফল করতে ইতোমধ্যে প্রস্তুতি শুরু করেছে বাংলা একাডেমি।

শ্রমিকরা এখন ব্যস্ত সময় পার করছেন স্টল বানানোর কাজে। কেউ মাটিতে গর্ত করছেন, আবার কেউ পুঁতছেন বাঁশ।

কেউ আবার সেগুলো সাজিয়ে বাঁধছেন।অন্য বছরের তুলনায় এবার বাড়ানো হয়েছে মেলার পরিসর।

বাড়ছে স্টল ও প্রকাশনীর সংখ্যাও। বাংলা একাডেমি প্রাঙ্গণ আর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের প্রায় তিন লাখ বর্গফুট জায়গাজুড়ে হবে এবারের বইমেলা। এছাড়া, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী এবং স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উপলক্ষে এবারের বইমেলা একটু বেশিই বিশেষ। মেলার আনুষ্ঠানিকতাও হবে বঙ্গবন্ধুকে কেন্দ্র করে। আয়োজনেও আনা হবে বৈচিত্র্য। মুক্তিযুদ্ধ ও বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে থাকবে বিভিন্ন আসর ও সাহিত্যালোচনা। করোনা ভাইরাসের শঙ্কার মধ্যেই বইমেলা অনুষ্ঠিত হবে বলে স্বাস্থ্যবিধি মানায় কড়াকড়ি থাকবে। এমনটাই জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।
এ বিষয়ে বাংলা একাডেমি কর্তৃপক্ষ জানায়, স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে এবারের বইমেলা সাজবে ‘হে স্বাধীনতা’ থিমে। একুশের চেতনাকে ধারণ করে স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী এবং মুজিব জন্মশতবর্ষ— সবকিছুই উঠে আসবে এ বইমেলায়। মেলা শুরু হবে ১৮ মার্চ এবং শেষ হবে ১৪ এপ্রিল অর্থাৎ বাংলা নববর্ষ ১৪২৮ বরণের মধ্য দিয়ে। সে সময়ে ঝড়-বৃষ্টির আশঙ্কা বিবেচনায় রেখে এবারের মেলায় আগতদের জন্য নিরাপদ আশ্রয়ের ব্যবস্থাও থাকবে।

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.