‘অভাবের কারণে’ সন্তানকে হত্যা

শিক্ষাবার্তা ডেস্কঃ গাজীপুরে অভাবের কারণে এক বাবা তার সন্তানকে হত্যা করে ব্লেড গিলে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছে বলে পুলিশ জানিয়েছে।

শনিবার বিকেলে গাজীপুর শহরের পূর্ব এনায়েতপুর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। মারা যাওয়া শিশুর নাম তামান্না আক্তার (৮)।

গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশ (জিএমপি) কাশিমপুর থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) নাহিদ আল রেজা জানান, শিশুটিকে বালিশ চাপা দিয়ে হত্যা করা হয়েছে। শিশুটির বাবা তরিকুল ইসলামকে গ্রেপ্তার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। দিনাজপুরের নবাবগঞ্জ উপজেলার নন্দনপুর গ্রামে তার বাড়ি।

তাদের সাড়ে তিন বছরের আরও এক সন্তানকে গ্রামের বাড়ি রেখে আসেন।

শিশুটির মা নাদিরা আক্তার জানান, গত তিন সপ্তাহ আগে কাজের সন্ধানে দিনাজপুর থেকে স্ত্রী ও এক সন্তানকে নিয়ে গাজীপুরে আসেন তরিকুল। পূর্ব এনায়েতপুরের সবুজ কানন এলাকার ভাড়া বাসায় উঠে স্থানীয় পোশাক কারখানায় চাকরি নেন তরিকুল ও নাদিরা।

তরিকুল অভাবের কারণে কিছুদিন ধরে মানসিক অস্থিরতায় ভুগছিলেন বলে দাবি করেন নাদিরা আক্তার। তিনি জানান, সাড়ে তিন বছর বয়সী তাদের আরেক সন্তান দিনাজপুরের বাড়িতে আছে।

নাদিরা জানান, শনিবার তিনি তামান্নাকে বাসায় রেখে কর্মস্থলে গেলেও তার স্বামী কাজে যাননি। স্ত্রীর অনুপস্থিতিতে দুপুরে তরিকুল বালিশ চাপা দিয়ে তামান্নাকে হত্যা করে। পরে তিনি নিজেও ব্লেডের টুকরো গিলে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন। প্রতিবেশীরা টের পেয়ে পুলিশকে খবর দেয়।

ময়নাতদন্তের জন্য নাদিরার মরদেহ শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

এসআই নাহিদ আল রেজা জানান, তরিকুল ব্লেড গিলে খাওয়ায় কথা বলতে পারছেন না। তবে হাত দিয়ে লিখে বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দিচ্ছে। তাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

শিক্ষাবার্তা ডট কম/এএইচএম/০১/২২/২৩