অনুশীলনে নেই মেসি, টিম ম্যানেজমেন্টের বক্তব্যে রহস্য আরও বাড়ল

নিউজ ডেস্ক।।

লিওনেল মেসি ছাড়া আর্জেন্টিনা দল কল্পনাই করতে পারেন না কোচ লিওনেল স্কালোনি। শুধু তিনিই নন; গোটা ফুটবল বিশ্বই এ বিষয়ে একমত।

nagad-300-250
আর সেই মেসিকেই দেখা গেল না অনুশীলনে, যা নিয়ে মেসিভক্তদের মাঝে চলছে উত্তেজনা। কি হয়েছে প্রিয় তারকার? তিনি কি ইনজুরিতে পড়েছেন ফের? নাকি কাতারের উষ্ণ আবহাওয়ায় অসুস্থ হয়ে পড়েছেন?

অনুশীলনে মেসিকে না দেখে এমন সব প্রশ্ন আর রহস্য জমেছে ফুটবলপ্রেমীদের মাঝে।

শুক্রবার সন্ধ্যায় কাতার বিশ্ববিদ্যালয়ের ৩ নম্বর মাঠে মেসি ও ডি মারিয়াকে ছাড়াই অনুশীলনে নামেন আর্জেন্টিনার কোচ। এটা দেখে রহস্য ক্রমশ ঘনীভূত হয়।

কারণ, বৃহস্পতিবার বিকালেও অনুশীলন করেননি মেসি।কিন্তু সতীর্থদের সঙ্গে মাঠে এসে শুধু হাঁটাহাঁটি করেন। কিন্তু শুক্রবার দেখাই গেল না আর্জেন্টাইন ফুটবলের জাদুকরকে।

এদিন দোহায় স্থানীয় সময় সন্ধে ৬টা থেকে ছিল আর্জেন্টিনা দলের প্রথম অনুশীলন। কিন্তু ২ ঘণ্টা আগেই দলকে নিয়ে মাঠে নেমে পড়েন কোচ স্কালোনির সহকারীরা। আর্জেন্টাইন দলকে দেখে ভিড় করতে শুরু করেন সংবাদমাধ্যমের প্রতিনিধিরা।

তারা সবাই মেসিকে খুঁজছিলেন। বিশেষ করে আর্জেন্টিনার সাংবাদিকরা মেসি…মেসি বলে চিৎকার করছিলেন, গান গাইছিলেন। কিন্তু কোথাও মেসির দেখা নেই।

এক ঘণ্টা পর মাঠে পানি ঢালা শুরু করা হয়। এর কারণ জানতে চাইলে আর্জেন্টিনা টিম ম্যানেজমেন্টের এক সদস্য বলছিলেন, ‘এই শক্ত মাঠে অনুশীলন করলে ফুটবলারদের চোট লাগার আশঙ্কা রয়েছে। তাই পানি দিয়ে মাঠ নরম করা হচ্ছে। মেসিরা টানা ম্যাচ খেলে ক্লান্ত। তাদের সুরক্ষার কথা ভেবেই এ পানি ঢালা হচ্ছে মাঠে।’

মাঠ শুকালে সন্ধ্যা ৬টায় কোচ স্কালোনি মাঠে নামলেন। পেছনে পাওলো দিবালারা। কিন্তু এবারও নেই মেসি।

কোথায় হারালেন মেসি! হতাশ সাংবাদিকরা, হতাশ মেসির অনুশীলন দেখতে আসা কাতারে কর্মরত আর্জেন্টিনা দূতাবাসের এক কর্মী ও তার ৭ বছরের মেয়ে কার্লা।

সাংবাদিকরা এবার আর মুখ বন্ধ রাখতে পারলেন না। আর্জেন্টিনার কোচিং প্যানেলের যাকেই পাচ্ছিলেন, জিজ্ঞেস করছিলেন, মেসি ও ডি মারিয়া কোথায়? তারা কেন অনুশীলন করলেন না? লিসান্দ্রো মার্টিনেজকেও দেখছি না।

ব্যস্ততার মধ্যেই তাদের কেউ একজন বললেন, উদ্বিগ্ন হবেন না। লিওনেল মেসি সুস্থ্য আছেন। তবে বেশ ক্লান্ত। বিশ্রাম নিচ্ছেন। তাই আজ অনুশীলন করবেন না।

আরেকজন বললেন, মেসি এ মুহূর্তে জিম করছেন।

দুজনের দু রকম কথায় রহস্য আরও ঘনীভূত হলো।

২২ নভেম্বর সৌদি আরবের বিপক্ষে প্রথম ম্যাচে কি আদৌ খেলতে পারবেন মেসি ও ডি মারিয়া?