অজ্ঞান অবস্থায় নামাজ কাজা হলে যা করবেন

প্রকাশিত: ১২:৪২ অপরাহ্ণ, রবি, ২১ ফেব্রুয়ারি ২১

অজ্ঞান হওয়ার কারণে অনেকেই নামাজ পড়তে পারেন না। অজ্ঞান হওয়ার কারণে নামাজের ওয়াক্ত চলে গেলে কিংবা একাধিক ওয়াক্তের নামাজ ছুটে গেলে করণীয় কী? সেক্ষেত্রে অজ্ঞান হওয়া ব্যক্তি জ্ঞান ফেরার পর কী করবেন?

অনেকেই নানা কারণে জ্ঞান হারিয়ে ফেলেন। কেউ অল্প সময় পর ঠিক হয়ে যান। আবার অনেকে দীর্ঘ দিন ধরে অজ্ঞান থাকেন। এ ক্ষেত্রে রয়েছে সুন্দর সমাধান। এ নিয়ে দুটি মতামত পাওয়া যায়-

– বিখ্যাত ইসলামিক স্কলার হজরত ইমাম নাখায়ী রাহমাতুল্লাহি আলাইহি বর্ণনা করেছেন, ‘একদিন একরাত অজ্ঞান থাকলে (ওই সময়ে ছুটে যাওয়া) নামাজ কাজা পড়তে হবে। আর এর চেয়ে বেশি হলে নামাজ কাজা করতে হবে না।’ (মুসান্নেফে ইবনে আবি শায়বা)

– অজ্ঞান হওয়ার পর একটানা ৬ ওয়াক্ত বা তার চেয়ে বেশি নামাজ ছুটে যায় তবে কাজা আদায় করতে হবে না। তবে হজরত নাফে রাহমাতুল্লাহি আলাইহি বর্ণনা করেন, হজরত আব্দুল্লাহ ইবনে ওমর রাদিয়াল্লাহু আনহু একবার দুই দিন অজ্ঞান ছিলেন কিন্তু তিনি ওই সময়ের নামায কাজা করেননি।’ (মুসান্নেফে ইবনে আবি শায়বা)

সুতরাং যদি কেউ ৬ ওয়াক্তের কম সময় অজ্ঞান থাকেন তবে তার ছুটে যাওয়া নামাজ কাজা করতে হবে। আর যদি কারো দুই দিনের বেশি সময়ের নামাজ ছুটে যায় তবে তার অজ্ঞান থাকাকালীন সময়ের নামাজ কাজা আদায় করতে হবে না। (কিতাবুল আছল, বাদায়েউস সানায়ে, আলবাহরুর রায়েক)

মন্তব্যসমূহ বন্ধ করা হয়.