অধিকার ও সত্যের পক্ষে

যেসব ইউনিভার্সিটিতে কম খরচে ডিগ্রি

 শিক্ষা বার্তা ডেস্ক॥

আজ একটি নতুন প্রোগ্রামের কথা বলবো, যা বাংলাদেশের মানুষের কাছে অনেকটাই নতুন। প্রোগ্রামটি হলো- ইন্টারন্যাশনাল সামার প্রোগ্রাম। প্রোগ্রামের প্রধান উদ্দেশ্য হচ্ছে- ছাত্রছাত্রীদের মধ্যে জ্ঞান-বিজ্ঞান, সংস্কৃতি ও যোগাযোগ বিনিময় করা।

প্রোগ্রামটি সাধারণত ১-৮ সপ্তাহের হয়ে থাকে, যা সর্বোচ্চ ৩-৪ ক্রেডিট হিসেবে গণনা করা হয়। এই প্রোগ্রামের বিশেষ সুবিধা হচ্ছে- ওই ইউনিভার্সিটি থাকা-খাওয়া, ইন্স্যুরেন্স, এয়ারপোর্ট পিকআপ-ড্রপ ও ভিসা ডকুমেন্টস ইত্যাদি সবকিছু ব্যবস্থাপনা করে থাকে।

এতে প্রোগ্রাম ফি, থাকা-খাওয়া, ইন্স্যুরেন্স, এয়ারপোর্ট পিকআপ, ড্রপ ও ট্যুর বাবদ সাধারণত সর্বনিম্ন ৮০ হাজার থেকে সর্বোচ্চ ৫ লাখ টাকা পর্যন্ত জনপ্রতি ধরা হয়ে থাকে। অনেক ইউনিভার্সিটি আবার তৃতীয় শ্রেণির দেশের (বাংলাদেশ) ছাত্রছাত্রীদের জন্য সামার প্রোগ্রামের ওপর ট্রাভেল স্কলারশিপ বা ডিসকাউন্টের ব্যবস্থা করে থাকে।

আবদনের শর্তাবলী
১. অবশ্যই ডিগ্রি ও অনার্স পাস অথবা অধ্যয়নরত হতে হবে।
২. ইংরেজি ভাষা জানতে হবে।
৩. আইইএলটিএস থাকলে ভালো। না থাকলে ‘ইংরেজি জানেন’ মর্মে ২ জন শিক্ষকের সুপারিশনামা নিতে হবে।
৪. ইউনিভার্সিটির অফার করা প্রোগ্রাম বা সাবজেক্টের ছাত্রছাত্রী হতে হবে।

সুবিধাসমূহ
১. বিদেশি ইউনিভার্সিটি ভ্রমণের সুযোগ। যথা- কানাডা, আমেরিকা, অস্ট্রেলিয়া ও ইউরোপ।
২. ইউনিভার্সিটিতে থাকা-খাওয়ার সুযোগ।
৩. ইউনিভার্সিটিতে পরবর্তী পড়াশোনার সুযোগ পান (যদি পড়তে চান)।
৪. ভিসার পাওয়ার কোনো জটিলতা থাকে না। অ্যাম্বাসিগুলো ৯৯% ভিসা দিয়ে থাকে।
৫. ইংরেজি বলা ও শেখার সুযোগ।
৬. আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে যাওয়ার সুযোগ।
৭. নিজের দেশ তথা বাংলাদেশের সংস্কৃতি তুলে ধরার সুযোগ।
৮. ওই দেশের লোকেশন ভ্রমণের সুযোগ, যা ওই ইউনিভার্সিটি করে থাকে।
৯. ওই দেশে পড়াশোনা শেষে চাকরি ও স্থায়ীভাবে বসবাসের সুযোগ।

যেসব ইউনিভার্সিটি
১. কানাডা: ইউনিভার্সিটি অব টরেন্টো, ম্যাকগেইল ইউনিভার্সিটি, ইউনিভার্সিটি অব আলবার্টা।
২. আমেরিকা: হাভার্ড ইউনিভার্সিটি, ইয়েল ইউনিভার্সিটি, নিউইয়র্ক ইউনিভার্সিটি।
৩. অস্ট্রেলিয়া: ইউনিভার্সিটি অব মেলবোর্ন, ইউনিভার্সিটি অব সিডনি, ইউনিভার্সিটি অব অ্যাডিলাইডি।
৪. ইউরোপ: ইউনিভার্সিটি অব অসলো (নরওয়ে), মিউনিখ ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি (জার্মানি), স্টকহোম ইউনিভার্সিটি (সুইডেন)।
৫. জাপান: ওয়াসেদা ইউনিভার্সিটি, সোফিয়া ইউনিভার্সিটি, মেইজি ইউনিভার্সিটি।
৬. সাউথ কোরিয়া: সিউল ন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি, উনসি ইউনিভার্সিটি, হ্যানিয়াং ইউনিভার্সিটি।

আবেদনের নিয়ম
ভৌগলিক কারণে পৃথিবীতে একেক সময় একেক দেশে গ্রীষ্মকাল হয়ে থাকে। আপনি যে ইউনিভার্সিটিতেই আবেদন করেন, ন্যূনতম ৬ মাস আগে আবেদন করতে হবে। ইউনিভার্সিটিগুলোর ওয়েবসাইট গুগলে সার্চ করলেই পাবেন। তাদের ওয়েবসাইটগুলো ফ্রিকোয়েন্টলি ভিজিট করতে থাকুন। দেখুন কোন ইউনিভার্সিটিতে সহজেই আবেদন করতে পারেন।
সূত্র: আনন্দবাজার

একই ধরনের আরও সংবাদ