অধিকার ও সত্যের পক্ষে

আশা ইউনিভার্সিটিতে সুচিন্তার জঙ্গিবিরোধী সেমিনার

 নিজস্ব প্রতিবেদক ॥

অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ বিনির্মাণে তরুণদের মনোজগৎ জাগ্রতকরণ ও জঙ্গিবিরোধী কার্যক্রম হিসেবে প্রায় এক বছর ধরে রাজধানীর বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে সেমিনার করে আসছে সুচিন্তা ফাউন্ডেশন।

‘জাগো তারুণ্য রুখো জঙ্গিবাদ’ শিরোনামে সুচিন্তা ফাউন্ডেশনের জঙ্গিবাদবিরোধী কার্যক্রমের এবারের সেমিনারটির আয়োজন করা হয় রাজধানীর আশা ইউনিভার্সিটিতে। সেমিনারে উপস্থিত ছিলেন ময়মনসিংহ-১০ আসনের সাংসদ ফাহমী গোলন্দাজ বাবেল।

শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, বৈশ্বিক একটি আতঙ্কের নাম জঙ্গিবাদ। কতিপয় গোষ্ঠী ধর্মের নামে তরুণদের মিথ্যা ধর্মীয় ভীতি ও প্রলোভন দেখিয়ে জঙ্গিবাদের মত ভয়ঙ্কর পথে ঠেলে দেয়ার চেষ্টা করছে। এটি বিশ্ব রাজনীতির একটি ভয়ঙ্কর খেলা। তাই আমাদের সচেতন হতে হবে।

অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন সুচিন্তা ফাউন্ডেশনের ডিরেক্টর ও আওয়ামী লীগের আন্তর্জাতিক বিষয়ক উপ-কমিটির সদস্য কানতারা খান।

তিনি বলেন, জঙ্গিবাদের সংজ্ঞা একেক জনের কাছে একেকরকম। জঙ্গিবাদের ফলেই সমৃদ্ধশালী বেশ কয়েকটি দেশ আজ ধ্বংস হয়ে গেছে। জঙ্গি হামলার কারণেই পাকিস্তানে প্রায় আট-দশ বছর ধরে কোনো আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয় না। আমাদের দেশকে নানাভাবে টার্গেট করা হয়েছিল কিন্তু পারেনি। প্রধানমন্ত্রী জঙ্গি দমনে জিরো টলারেন্স নীতির কারণে।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত আওয়ামী সেচ্ছাসেবক লীগের পানিসম্পদ বিষয়ক সম্পাদক প্রকৌশলী মাহবুবুর রহমান বলেন, তরুণরাই আজ ও আগামীর ভবিষ্যৎ। তাদেরকেই টার্গেট করা হচ্ছে নানা জঙ্গি হামলায়। এটা খুব ভীতিকর। এটা রুখতে হবে পরিবার থেকে। পরিবার থেকেই শিক্ষা দিতে হবে সঠিক ইসলামের।

আশা ইউনিভার্সিটির উপাচার্য বলেন, জঙ্গিবাদ একটি মতবাদ। এ মতবাদকে রুখতে হলে পাল্টা মতবাদ লাগবে। সুচিন্তা ফাউন্ডেশনের এ উদ্যোগ জঙ্গিবাদ নির্মূলে বিরাট ভূমিকা রাখবে বলে বিশ্বাস করি। উন্নয়নের ধারাবাহিকতা রক্ষায় জঙ্গিবাদের মত অপশক্তিকে দানা বাঁধতে দেয়া যাবে না।

অনুষ্ঠানে বাণিজ্য অনুষদের ডিন এ আর খান, কলা ও সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন এবং ইংরেজি বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. আবু দাউদ হাসান বক্তব্য রাখেন। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি।

একই ধরনের আরও সংবাদ