অধিকার ও সত্যের পক্ষে

৫৭ ধারা বিলুপ্ত হবে: মোস্তাফা জব্বার

 নিজস্ব প্রতিবেদক।।
ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন পাশ হলে আইসিটি অ্যাক্ট এর ৫৭ ধারা বিলুপ্ত হবে বলে জানিয়েছেন ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার। তবে ইতোপূর্বে এই ধারায় দায়ের হওয়া মামলাগুলো যথানিয়মে চলবে বলে জানান মন্ত্রী।

শনিবার রাজধানীতে ডিবেট ফর ডেমোক্রেসি আয়োজিত ছায়া সংসদের আদলে জাতীয় বিতর্ক প্রতিযোগিতার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এসব কথা জানান তিনি।

মোস্তাফা জব্বার বলেন, নতুন এ আইনের ৩২ ধারায় ‘গুপ্তচরবৃত্তি’ শব্দটি থাকছে না। এ আইন বাক স্বাধীনতা হরণের জন্য নয় বরং ডিজিটাল অপরাধ দমনের জন্য। বিশ্বে বাংলাদেশেই প্রথম এ আইন চালু হতে যাচ্ছে।

ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী জানান, ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন কার্যকর হওয়ার পর দেশে বিদ্যমান আরো কিছু আইনের সংশোধন প্রয়োজন হতে পারে। তথ্য অধিকার আইনে বর্ণিত নাগরিক অধিকার সমুন্নত রেখেই ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন তৈরি করা হচ্ছে।

দুর্নীতি বিরোধী সংবাদ পরিবেশনের ক্ষেত্রে এ আইন অন্তরায় হবে না জানিয়ে তিনি বলেন, তবে অফিসিয়াল সিক্রেসি অ্যাক্ট লংঘনকে শাস্তিযোগ্য অপরাধ বলে বিবেচিত হবে।

মন্ত্রী আরও বলেন, ডিজিটাল অপরাধ কমিয়ে আনতে আইনি কাঠামোর পাশাপাশি জনসচেতনতাও প্রয়োজন।

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন আয়োজক সংগঠন ডিবেট ফর ডেমোক্রেসির চেয়ারম্যান হাসান আহমেদ চৌধুরী কিরণ।

সভাপতির বক্তব্যে তিনি বলেন, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের দায়িত্বশীলতা বাড়ানোর জন্য যে আইন তৈরি হতে যাচ্ছে তা যেন নাগরিক অধিকারের পরিপন্থী না হয়।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমকে আরও দায়িত্বশীল করে তুলতে আইনি নিয়ন্ত্রণ বিষয়ক এ প্রতিযোগিতায় নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়কে হারিয়ে বিজয়ী হয় জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়।

বিতর্ক অনুষ্ঠানটি রাজধানীর তেজগাঁওস্থ এফডিসিতে অনুষ্ঠিত হয়। এবারের এই জাতীয় বিতর্ক প্রতিযোগিতায় ১৬টি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা অংশগ্রহণের সুযোগ পাবে।

একই ধরনের আরও সংবাদ