অধিকার ও সত্যের পক্ষে

ইন্টারনেট এর জন্ম

 ফাতিমা হাসিঃ

 “নেট ” বা “ইন্টারনেট ” শব্দটা থেকে অপরিচিত এমন মানুষ আজ কাল পাওয়া যাবে না। তবে এর জন্ম সম্পর্কে হয়তো আমরা সবাই জানি না। তাই ইন্টারনেট এর জন্ম নিয়ে সংক্ষিপ্ত কিছু কথাঃ নেট বা ইন্টারনেট হচ্ছে ইন্টারকানেক্টেড নেটওয়ার্ক (interconnected network) এর সংক্ষিপ্ত রূপ।অর্থাৎ সারা বিশ্বজুড়ে বিস্তৃত অসংখ্য নেটওয়ার্ক এর সমষ্টি। সাল ১৯৪৩, প্রথম প্রজন্মের কম্পিউটার ENIAC তৈরি করা হয়েছিল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সেনাবাহিনীর যুদ্ধক্ষেত্রে গোলাবারুদ নিক্ষেপের হিসাব নিকাশ এর উদ্দেশ্যে।

এরপর আস্তে আস্তে ১৯৫০ সাল পর্যন্ত সারা পৃথিবীতে হাতে গোনা কয়েকটি কম্পিউটার তৈরী হয় যেগুলো প্রত্যেকটা ছিলো আকারে বিশাল বড় ও অনেক দামী। এই কম্পিউটার গুলো বড় বড় বিশ্ববিদ্যালয় ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান বা সরকারি প্রতিষ্ঠানে ব্যাবহার হতো। সেই সময় থেকেই এক কম্পিউটার থেকে অন্য কম্পিউটার এ তথ্য আদান প্রদানের প্রয়োজনীয়তা অনুভব করে। তখন মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষা বিষয়ক গবেষণা প্রতিষ্ঠান ডারপা ( DARPA– Defence advance research project’s agency ) এই বিষয়ে গবেষণা শুরু করে এবং যোগাযোগ এর জন্য নেট বা ইন্টারনেট এর প্রস্তাবনা বাস্তবায়নের ধারাবাহিকতা শুরু হয়। ১৯৬৫ সালে গবেষকরা প্রথমবারের মত দুটি কম্পিউটারকে একটি নেটওয়ার্ক সংযুক্ত করে তথ্য আদান প্রদান করতে সক্ষম হয়।

এরপরে ARPANET এর ডিজাইন বাস্তবায়ন এ ৫০ kbps স্পিডে চারটি কম্পিউটার সংযুক্ত করা হয় এবং সফল ভাবে যোগাযোগ করতে সক্ষম হয়। ARPANET হলো ( advance research project agency network)। এটি ১৯৬৭ সালের যুদ্ধকালীন সময়ে সামরিক বাহিনী যাতে নিজেদের মাঝে যোগাযোগ করতে পারে অন্যান্য সব ব্যাবস্থা বন্ধ হয়ে গেলেও সেই প্রয়োজনীয়তা থেকেই বাস্তবায়িত হয়।

১৯৬৯ সাল এর শেষ নাগাদ পর্যন্ত এই চারটি কম্পিউটার ARPANET এ সংযুক্ত ছিল। এটাই ছিলো কম্পিউটার ইতিহাসের প্রথম কার্যকর নেটওয়ার্ক, যার উপর ভিত্তি করেই পরবর্তিতে ইন্টারনেটের সূচনা হয়। পর্যায়ক্রমিক ভাবে এটি সারাবিস্বময় ছড়িয়ে পরে যা বর্তমানে আমাদের যোগাযোগের প্রধান মাধ্যম।

লেখকঃ 

ফাতিমা হাসি

একই ধরনের আরও সংবাদ