অধিকার ও সত্যের পক্ষে

প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষার প্রস্তুতি- বিজ্ঞান

 জাহাঙ্গীর আলম সেলিম।।

প্রিয় শিক্ষার্থীরা, শুভেচ্ছা নিও। আশা করি ভাল আছো। আজ জন্য আমাদের জীবনে তথ্য নিয়ে আলোচনা করা হলোঃ

প্রশ্ন.তথ্য বিনিময় না করলে কী হতে পারে তা ব্যাখ্যা কর।

উত্তর : তথ্য বিনিময় হলো এমন একটি প্রক্রিয়া যার সাহায্যে জানা তথ্য পরিবার, বন্ধু বান্ধব, আত্মীয় স্বজনদের সঙ্গে আদান-প্রদান করা। তথ্য বিনিময় না করলে আমাদের স্বাভাবিক জীবনের নানান ক্ষতির সম্মুখীন হতে হয়। যেমন— যদি আবহাওয়াবিদরা বলেন যে প্রচণ্ড জলোচ্ছ্বাস হবে, কিংবা ঘূর্ণিঝড় হবে এবং এই তথ্যটি যদি বিনিময় তথা কাউকে জানানো না হয় তাহলে সমুদ্র উপকূলের মানুষ ছাড়াও অন্যান্য অঞ্চলের মানুষের জীবন ও সম্পদের ক্ষতি বৃদ্ধি পাবে। শুধু দুর্যোগই নয়, যদি দেশে কোনো রোগ বা আতঙ্কের কোনো ব্যাপার সৃষ্টি হয় তবে তা সকলের কাছে বিনিময় করা উচিত। যদি তা না করা হয় তবে আমাদের ব্যক্তিগত ও সামাজিক জীবনে নানা সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়।

প্রশ্ন.কীভাবে আমরা ইন্টারনেটের মাধ্যমে তথ্য সংগ্রহ করব তা বর্ণনা কর।

উত্তর : ইন্টারনেটের মাধ্যমে তথ্য সংগ্রহের প্রথম কাজ হলো প্রয়োজনীয় তথ্য অনুসন্ধান। নির্দিষ্ট তথ্যের উত্স খোঁজার জন্য আমরা Search ইঞ্জিন নামক অ্যাপ্লিকেশন সফটওয়্যার ব্যবহার করতে পারি। ইন্টারনেট হলো পৃথিবীর বিভিন্ন প্রান্তের কাম্পিউটারগুলোকে সংযুক্তকারী বিশাল নেটওয়ার্ক। আমরা আমাদের প্রয়োজনীয় তথ্যটি কম্পিউটার বা মোবাইল ফোনের মাধ্যমে ইন্টারনেট ব্যবহার করে সহজেই পেতে পারি। এ কাজের মৌলিক ধাপগুলো হলো—

Search ইঞ্জিন যেমন— গুগল (google), ইয়াহু (yahoo), পিপীলিকা (pipilika) ইত্যাদি ব্যবহার করা।

যে বিষয়ের তথ্যটি অনুসন্ধান করছি সে বিষয় সম্পর্কিত “মূল শব্দটি” -Search Bar” এ লিখে -Search” লিখাটিতে অথবা “Enter Key” তে চাপ দেই।

এক্ষেত্রে সার্চ ইঞ্জিন ওয়েবসাইটের যে তালিকা আসবে সেখান থেকে ওয়েবসাইট বেছে নিয়ে প্রয়োজনীয় তথ্যটি সংগ্রহ করা।

প্রশ্ন.“বাংলাদেশে ঘূর্ণিঝড় আসছে” এই তথ্যটি তুমি টেলিভিশন থেকে পেলে। এখন তুমি কী করবে ?

উত্তর : “বাংলাদেশে ঘূর্ণিঝড় আসছে” এই তথ্যটি যদি আমি টেলিভিশনের মাধ্যমে জানতে পারি তাহলে অবশ্যই আমি তা যতদূর সম্ভব সকলকে জানাবো। অর্থাত্ আমরা টেলিভিশনের মাধ্যমে পাওয়া তথ্যটি আমি বিনিময় করব। আমার জানা তথ্যটি বিনিময়ের জন্য আমি বিভিন্ন প্রযুক্তির সাহায্য নিতে পারি। যেমন— টেলিফোনের মাধ্যমে, নিকট আত্মীয় স্বজন, বন্ধু বান্ধবদের জানাতে পারি, খুদে বার্তা (এস. এম. এস.), ই-মেইল, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে, যেমন— ফেসবুক বা টুইটার ব্যবহার করে, ইন্টারনেটের মাধ্যমেও সকলকে সতর্ক করতে পারি। ঘূর্ণিঝড়ের তথ্যটি যদি আমি অন্যান্য মানুষদের জানাতে পারি তবে তারা প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা গ্রহণের মাধ্যমে ঘূর্ণিঝড়ের ক্ষয়ক্ষতি হ্রাসের ব্যবস্থা নেবে। ফলে অনেক মানুষের জীবন ও সম্পদ রক্ষা পাবে।

 লেখক- শিক্ষক।

একই ধরনের আরও সংবাদ