অধিকার ও সত্যের পক্ষে

নিরাপদ সড়কের দাবীতে খুলনায় শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন

 মোঃ মোজাহিদুর রহমান

ঢাকায় আন্দোলনরত ক্ষুদে শিক্ষার্থীদের উপর পুলিশের হামলার প্রতিবাদে এবং নিরাপদ সড়কের দাবিতে খুলনায় মানববন্ধন করেছে সাধারণ শিক্ষার্থীরা। বুধবার দুপুরে নগরীর শিববাড়ি মোড়ে এ মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়। এ সময় শিক্ষার্থীরা সরকারের কাছে নিরাপদ সড়কের স্বার্থে ১৫ দফা দাবি জানান।দাবিগুলোর মধ্যে রয়েছে- বেপরোয়া ড্রাইভারকে ফাঁসি দিতে হবে এবং এই শাস্তি সংবিধানে সংযোজন করতে হবে। শিক্ষার্থীদের চলাচলে এমইএস ফুটওভার ব্রিজ বা বিকল্প নিরাপদ ব্যবস্থা নিতে হবে। প্রত্যেক সড়কের দুর্ঘটনাপ্রবণ এলাকাতে স্পিড ব্রেকার দিতে হবে। সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ছাত্র-ছাত্রীদের দায়ভার সরকারকে নিতে হবে। শিক্ষার্থীরা বাস থামানোর সিগন্যাল দিলে, থামিয়ে তাদের বাসে তুলতে হবে। শুধু ঢাকা নয়, সারাদেশের শিক্ষার্থীদের জন্য হাফ ভাড়ার ব্যবস্থা করতে হবে। ফিটনেসবিহীন গাড়ি রাস্তায় চলাচল বন্ধ ও লাইসেন্স ছাড়া চালকরা গাড়ি চালাতে পারবে না। বাসে অতিরিক্ত যাত্রী নেয়া যাবে না। নির্দিষ্ট বয়সসীমা ছাড়া ড্রাইভার হিসাবে গাড়ি চালানো যাবে না। জেব্রা ক্রসিং দিতে হবে, ট্রাফিক পুলিশের সচেতনতা, কাজের প্রতি দায়িত্ব বাড়াতে হবে। পরিবহনে যৌন হয়রানি বন্ধ করতে হবে এবং এটিকে শাস্তিযোগ্য অপরাধ হিসেবে শাস্তি প্রদান করতে হবে। গুরুত্বপূর্ণ রাস্তায়, স্কুল, কলেজ হাসপাতালের সামনেও সকল প্রকার গাড়ির স্পিড লিমিট থাকতে হবে। নির্দিষ্ট সংখ্যক লাইসেন্সপ্রাপ্ত ইজিবাইক ছাড়া খুলনার রাস্তায় ইজিবাইক চলবে না। যেখানে সেখানে গাড়ি পার্ক করা যাবে না। উচ্ছৃঙ্খলভাবে মোটরসাইকেল আরোহীদের জরিমানাসহ শাস্তি প্রদান করতে হবে।শিক্ষার্থীরা বলেন, আমাদের দেশের অধিকাংশ গাড়ি চালকের কোনো প্রশিক্ষণ নেই। ড্রাইভিং লাইসেন্সও নেই অনেকের। এসব অদক্ষ চালক বেপরোয়াভাবে গাড়ি চালিয়ে একের পর এক মানুষ হত্যা করছে। যা কোনভাবে মেনে নেয়া যায় না। মানববন্ধন থেকে ঢাকায় আন্দোলনরত ক্ষুদে শিক্ষার্থীদের উপর পুলিশের হামলার প্রতিবাদ জানানো হয়।
মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন, শিক্ষার্থী রাসেল মাহমুদ, সুদীপ কুমার, সোহানুর বাবুল প্রেম, ফাতেমা তুজ জোহরা, বন্যা, শামীম, মুজাহিদুল, কিশোর কুমার বাড়ৈ প্রমুখ।

একই ধরনের আরও সংবাদ