অধিকার ও সত্যের পথে

সবাইকে কাদিয়ে অধ্যাপক রাজীব মীর না ফেরার দেশে

 এ এইচ এম সায়েদুজ্জামান।।

ভোলার জেলার কৃতিসন্তান, পরাণগন্জ নিবাসী শ্রদ্ধেয় শিক্ষক মোহাম্মদ মোফাজ্জল হোসেন এর সবচেয়ে বড় ও একমাত্র পুত্র সন্তান, চট্টগ্রাম ও জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের গণসংযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সাবেক সহযোগী অধ্যাপক, কবি,লেখক, গবেষক, সমাজকর্মী  রাজীব মীর আজ ২১ জুলাই,রাত ১ঃ৩৭মিনিটে চেন্নাইয়ের গ্লোবাল হাসপাতালের আইসিইউতে চিকিৎসাধীন অবস্হায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।  ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন।

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংবাদিকতা বিভাগের এই শিক্ষক লিভার সিরোসিস রোগে আক্রান্ত ছিলেন। তিন মাস আগে চিকিৎসার জন্য তিনি চেন্নাই যান। সেখানকার চিকিৎসকরা জানান, দুই মাসের মধ্যে লিভার ট্রান্সপ্লান্ট করা না হলে তাকে বাঁচানো সম্ভব নয়। শিক্ষক রাজীব মীরের চিকিৎকসার জন্য প্রায় এক কোটি টাকা প্রয়োজন ছিল। শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও শুভানুধ্যায়ীরা মিলে ৫০ লাখের মতো জোগাড় করেন।

রাজীব মীর সর্বশেষ জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের শিক্ষক ছিলেন। গত বছরবিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ তাকে চাকরিচ্যুত করে। এর বিরুদ্ধে রাজীব মীর হাইকোর্টে রিট করেন। সর্বশেষ বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য রাষ্ট্রপতির কাছে চাকরি ফিরে পেতে আবেদন করেন তিনি।

একই ধরনের আরও সংবাদ