অধিকার ও সত্যের পক্ষে

গুণেভরা অ্যালোভেরার ব্যবহার

 নিউজ ডেস্ক।।

আজকাল রাস্তা-ঘাটে প্রায়ই অ্যালোভেরা বিক্রি করতে দেখা যায়। এর প্রচুর ভেষজ গুণ রয়েছে। বাংলায় এটাকে বলা হয় ঘৃতকুমারী। রূপচর্চা,চুলচর্চার পাশাপাশি এটি স্বাস্থ্যের জন্যও উপকারী।

প্রাচীনকাল থেকেই অ্যালোভেরা নানা রোগের ওষুধি হিসেবে ব্যবহৃত হয়ে আসছে। এতে বিদ্যমান নানা উপাদান হজমশক্তি বাড়ায়। নিয়মিত অ্যালোভেরা জুস পান করলে কোষ্টকাঠিন্য কমে। সেই সঙ্গে গ্যাস্ট্রিকের সমস্যাও দূর হয়।

অ্যালোভেরার রস পান করলে রক্ত সরবরাহ ভালো হয়। যখন রক্তে অক্সিজেনের সরবরাহ ঠিক থাকে তখন শরীরও ভালো থাকে। শরীরের যেকোন ধরনের সংক্রমণ কমাতে সাহায্য করে এই রস। শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাও বাড়ায়।

যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক ‘আন্তর্জাতিক ইমিনোফর্মাকোলজি জার্নালে’ প্রকাশিত প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, অ্যালোভেরা ক্যান্সারের জন্যও বেশ উপকারী।

  রূপচর্চাবিষয়ক একটি ওয়েবসাইটের প্রতিবেদনে জানানো হয়, এতে রয়েছে অ্যান্টিব্যাক্টেরিয়াল উপাদান। যা খাওয়া যেমন স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী তেমনি ত্বকের যত্নেও সমানভাবে কার্যকর।

ময়েশ্চারাইজার:  শুষ্ক ত্বকের যত্নে অ্যালোভেরা বেশ উপকারী। পুষ্টি প্রদানের মাধ্যমে ত্বকের আর্দ্রতা বজায় রেখে কোমল রাখতে সাহায্য করে অ্যালোভেরা। তাছাড়া অন্যান্য তেল সমৃদ্ধ ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করলে ত্বক তেলতেলে হয়ে যাওয়ার সমস্যা থাকে। অ্যালোভেরা ব্যবহার করলে হয় না। ময়েশ্চারাইজারের পাশাপাশি অ্যালোভেরা মেইকআপের আগে প্রাইমার হিসেবেও ব্যবহার করা যায়।

পায়ের যত্নে: পায়ের রুক্ষ ত্বক বা পা ফাটার সমস্যায় অ্যালোভেরা দারুণ উপযোগী। পায়ে ভারী করে অ্যালোভেরা জেল লাগিয়ে শুকিয়ে যাওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করুন। ঘুমানোর আগে মোজা পরে নিন এতে পা কোমল থাকবে।

রোদে পোড়া ত্বকের যত্ন: অ্যালোভেরা জেলে রয়েছে ত্বক সুস্থ রাখার উপাদান। তাই এটি রোদেপোড়া ত্বক সুস্থ করে তুলতে সাহায্য করে। এছাড়ার ত্বকের লালচেভাব, জ্বালভাব বা অন্যান্য সমস্য দূর করতেও এই জেল সহায়ক। আক্রান্ত ত্বকে ভারী করে জেল লাগিয়ে অপেক্ষা করুন। ক্ষতিগ্রস্ত ত্বক শীতল করতে সাহায্য করবে অ্যালোভেরা।

দাগ হালকা করতে সহায়ক: অ্যালোভেরা জেল ত্বকের দাগ ছোপ, ব্রণের দাগ, রোদপোড়া দাগ হালকা করতে সহায়ক। প্রতিরাতে অ্যালোভেরা জেল ব্যবহারে দাগ হালকা হয়। এছাড়া চোখের নিচের কালি দূর করতেও এই জেল সহায়ক।

মেইকআপ রিমুভার: সুন্দরভাবে মেইকআপ করার থেকে তা ভালোভাবে পরিষ্কার করে নেওয়া বেশি গুরুত্বপূর্ণ। আর রাসায়নিক উপাদান সমৃদ্ধ মেইকআপ রিমুভারের তুলনায় অ্যালোভেরা কার্যকর ও উপকারী মেইকআপ রিমুভার। বিশেষত চোখের মেইকআপ যেমন কাজল, মাস্কারা এবং শ্যাডো তুলে ফেলতে রাসায়নিক মেইকআাপ রিমুভারের তুলনায় অ্যালোভেরা বেশি উপযোগী। এতে চোখের কোনো ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনা থাকে না।

ঘরোয়া স্ক্রাব: ত্বকের আর্দ্রতা ধরে রেখে মৃতকো্ষ দূর করতে উপকারী স্ক্রাব তৈরি করতে অ্যালোভেরা ব্যবহার করা যায়। অ্যালোভেরার সঙ্গে চিনি বা কফি মিশিয়ে এক্সফলিয়েটর তৈরি করে নেওয়া যায়।

ভ্রু’র জেল: চোখের ভ্রু সেট করতে বিভিন্ন জেল পাওয়া যায়। হাতের কাছে এমন জেল না থা্কলে বিকল্প হিসেবে ব্যবহার করা যেতে পারে অ্যালোভেরা। পরিষ্কার মাস্কারার তুলি অ্যালোভেরা জেলে ডুবিয়ে তা ভ্রুতে বুলিয়ে নিন। এই ভ্রু একই রকম রাখতে সাহায্য করবে দীর্ঘক্ষণ।

একই ধরনের আরও সংবাদ