অধিকার ও সত্যের পক্ষে

এডওয়ার্ড কলেজে ছাত্র ফ্রন্টের উপর ছাত্রলীগের হামলা

 শিক্ষা বার্তা ডেস্ক;
 পাবনা এডওয়ার্ড কলেজে সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট নেতা-কর্মীদের উপর ছাত্রলীগের বর্বর হামলার ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করেছে সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট কেন্দ্রীয় কমিটি।
সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্টের কেন্দ্রিয় সভাপতি ইমরান হাবিব রুমন ও সাধারণ সম্পাদক নাসির উদ্দিন প্রিন্স এক যুক্ত বিবৃতিতে গতকাল রাতে পাবনা এডওয়ার্ড কলেজে সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট এর নেতা-কর্মীদের উপর বর্বরোচিত হামলার ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।
বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ বলেন, সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট এর নেতা-কর্মীরা গতকাল রাতে যখন এডওয়ার্ড কলেজের সমস্যা সংকট নিরসন ও প্যালেস্টাইনে গণহত্যা বন্ধের দাবিতে দেয়াল লিখন করছিল সেই সময় ছাত্রলীগের জেলা সভাপতির নেতৃত্বে প্রায় ৭০-৮০ জন সশস্ত্র সন্ত্রাসী অতর্কিতে সেখানে হামলা করে। হামলাকারীরা কোন কথা বলার সুযোগ না দিয়ে বেধড়ক মারধোর করতে থাকে। চাকু-পিস্তল দিয়ে হত্যার হুমকী দেয়।
এ সময় সেখানে পুলিশ সদস্যরাও উপস্থিত ছিল কিন্তু তারাও নির্বিকার ভূমিকা পালন করে। ছাত্র ফ্রন্ট কর্মীদের সাথে থাকা মোটর সাইকেল-মোবাইল-টাকা পয়সা ইত্যাদিও কেড়ে নেয় সন্ত্রাসীরা। হামলায় সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট এডওয়ার্ড কলেজ শাখার সংগঠক মিজানুর রহমান শুভ, প্রত্যয় এবং জোবায়ের গুরুতরভাবে আহত হয়। শুভ এর চুল টেনে ছিড়ে ফেলে এবং পরে কাচি দিয়ে কেটে দেয় সন্ত্রাসীরা। পরবর্তীতে পুলিশ তাদের তুলে নিয়ে হাইওয়ের কাছে গিয়ে আবার ১ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে।
নের্তৃবৃন্দ বলেন, ক্ষমতাসীন ছাত্র সংগঠন ছাত্রলীগ সারা দেশেই ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করেছে। পাবনার ঘটনা বিচ্ছিন্ন কোন ঘটনা নয়। সারা দেশেই ছাত্রলীগ ছাত্রদের প্রতিরোধের শক্তিকে দমন করার লাঠিয়াল বাহিনী হিসেবে কাজ করছে। ভিন্নমত দমন করাই এখন ছাত্রলীগের রাজনৈতিক কর্তব্য হয়ে দাড়িয়েছে। একদিকে জনগণের ম্যন্ডেটবিহীন সরকারের চূড়ান্ত অগণতান্ত্রিক ফ্যাসিবাদি শাসন, উন্নয়নের নামে হরিলুট চলছে আবার তার প্রতিবাদ করতে গেলে জনগণের ন্যয়সংগত ন্যায্য আন্দালনকে কোথাও পুলিশ দিয়ে, কোথাও দলীয় গুন্ডাদের দিয়ে দমন করানো হচ্ছে। কিন্তু শাসকদের মনে রাখা উচিত এই প্রক্রিয়া খুব বেশিদিন স্থায়ী হয়না, এভাবে খুব বেশিদিন ক্ষমতার মসনদ টিকিয়ে রাখা যায়না।
নের্তৃবৃন্দ অবিলম্বে এডওয়ার্ড কলেজে ছাত্র ফ্রন্ট নেতা-কর্মীদের ওপর হামলাকারী ছাত্রলীগ জেলা সভাপতিসহ সন্ত্রাসীদের গ্রেফতার ও বিচারের আওতায় আনার দাবি জানান এবং একই সাথে হামলায় সময় উপস্থিত পুলিশ সদস্যদেরও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন।
একই ধরনের আরও সংবাদ