অধিকার ও সত্যের পক্ষে

জাককানইবিতে চলমান আন্দোলনের প্রেক্ষিতে উপাচার্যের সংবাদ সম্মেলন

 জাককানইবি প্রতিনিধিঃ

সম্প্রতি জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাককানইবি) পরিবহনের বাস সম্প্রতি দুর্ঘটনায় পতিত হওয়ার প্রেক্ষিতে উদ্ভুত পরিস্থিতি নিয়ে ১৭ই মে (বৃহস্পতিবার) সকালে ভিডিও কনফারেন্স রুমে সাংবাদিকদের সাথে সংবাদ সম্মেলন করেছে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য।

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. এএইচএম মোস্তাফিজুর রহমান এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) ড. মোঃ হুমায়ুন কবীর। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন বিভিন্ন অনুষদের ডিন, বিভাগীয় প্রধান, শিক্ষকবৃন্দ, প্রক্টরিয়াল বডির সদস্যবৃন্দ, কর্মকর্তা কর্মচারীবৃন্দ।

সংবাদ সম্মেলনে নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য বলেন, “কবি নজরুল বিশ্ববিদ্যালয় বর্তমানে গভীর সংকটে নিমজ্জিত। একটি মহলের চক্রান্তে বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবেশ অস্থিতিশীল করে তুলতে এক ঘটনার প্রবাহ অন্য দিকে প্রবাহিত করে ফায়দা হাসিলের চেষ্টা চালানো হচ্ছে। তিনি দুষ্কৃতিকারীদের প্রতি কঠোর হুশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেন, যারা আমাদের এই প্রতিষ্ঠানকে অস্থিতিশীল করার চেষ্টা করছে বা করবে তাদেরকে বিন্দুমাত্র ছাড় দেয়া হবেনা”।

তিনি বলেন, গাড়ি ভাংচুর, দুবৃত্তদের হামলায় শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও সাংবাদিক আহত হওয়ার বিষয়টি তদন্ত করে দায়ী এবং প্রকৃত দোষীদের খোঁজে বের করার জন্য সাত কার্যদিবস সময় দিয়ে একটি উচ্চ পর্যায়ের তদন্ত কমিটি গঠিত হয়েছে। অন্যদিকে কালের কন্ঠের সাংবাদিক বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্য করে কুরুচিপূর্ণ ও মন্তব্যে’র নিন্দা জানান। শিক্ষার্থীরা যাতে কোন ধরনের শৃংখলাবিরোধী কাজের সাথে সম্পৃক্ত না হয় সেদিকে বিশেষভাবে লক্ষ্য রাখা হচ্ছে এবং শিক্ষার্থীদের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত মামলাসমূহ দ্রুত সময়ের মধ্যে প্রত্যাহারের জন্য জোড় দাবী জানান।

উপাচার্য তার বক্তব্যে আরো বলেন, একটি বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্ম কাউকে আঘাত করা নয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকরা হচ্ছেন পড়শ পাথরের ন্যায় তাদের সংস্পর্শে এসে মন্দ ভালোতে পরিণত হয়। তিনি সবার মধ্যে একটি পারষ্পরিক সহযোগীতামূলক মনোভাব তৈরীতে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানান।

এছাড়া সম্মেলনে অন্যান্য বক্তারা চলমান ঘটনায় দুঃখ প্রকাশ করেন এবং দ্রুত সকল বিষয়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণের প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

একই ধরনের আরও সংবাদ