অধিকার ও সত্যের পক্ষে

ধোবাউড়ার এমপিও শিক্ষকদের চড়াসুদে চেক বিক্রয়

 এবি সিদ্দীক,উপজেলা প্রতিনিধিঃ

ধোবাউড়া উপজলায় এমপিও শিক্ষকগণ সঠিক সময়ে বেতন না পেয়ে অসন্তোষ ক্রমেই বাড়ছে। সকল উচ্চ বিদ্যালয়,কলজে ও মাদ্রাসার শিক্ষকদের মাঝে এ বিষয়ে উত্তেজনা ও হতাশা বিরাজ করছে।

গত ২৪ এপ্রিল,২০১৮ এর বেতন ছাড় হয়েছে, ১০ মে,২০১৮খ্রিঃ শিক্ষকগণ তাদের নিজ নিজ একাউন্ট থেকে বেতন উত্তোলনের শেষ তারিখ।কিন্তু আজ ১৩ মে পর্যন্ত বেতনের টাকা ব্যাংকে গিয়ে না পেয়ে মন খারাপ করে ফিরে আসতে হয় তাদের।
তাদের কয়েকজন শিক্ষাবার্তাকে বলেন ডিজিটাল বাংলাদেশে ১৯ দিনেও এমপিও কপি ধোবাউড়ায় পৌছেঁনি – এ কেমন কথা।

অনেক শিক্ষক নিরুপায় হয়ে চড়াসুদে চেক বিক্রয় করে সর্বস্বান্ত হয়ে পড়ছেন। কতিপয় সুদখোর মহাজন শিক্ষকদের এ সুযোগ ভালই কাজে লাগাচ্ছে।

বেতন নিয়ে এমন বিলম্ব কেন হচ্ছে জানতে চাইলে ধোবাউড়া উপজেলার সোনালি ব্যাংকের ব্যবস্থাপক তার কিছুই করার নেই বলে মন্তব্য করেন। তিনি বলেন এমপিও’র ক্যাশ জমা হলেও এমপিওর কপি হাতে পৌঁছতে দেরী হয়, আবার কখনো এমপিও কপি যথা সময়ে পৌছঁলে ক্যাশ জমা হয়না।এসব কারনে বেতন প্রদান বিলম্ব হয়। সাংবাদিকগগণ যেন মন্ত্রনালয়ে যোগাযোগ করেন- বলে তিনি পরামর্শ দেন।

ডিজিটাল বাংলাদেশে জাতির বিবেক শিক্ষকদের এমন হয়রানী কাম্য নয়,সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের সদিচ্ছা প্রয়োজন।এ বিষয়ে সাবেক শিক্ষা সচিব এন আই খান এক তারিখেই তিনি নিজে যেমন বেতন পান তেমনি শিক্ষকগণ পাবেন বলে শুভোদ্যোগ গ্রহণ করেছিলেন।

একই ধরনের আরও সংবাদ