অধিকার ও সত্যের পথে

চলতি বছরে ২৮২টি ইনোভেশন কার্যক্রম বাস্থবায়নাধীন রয়েছে–ড. মো: আবু হেনা মোস্তফা কামাল

 জাহাঙ্গীর আলম সেলিমঃ

আজ সকাল ১০ ঘটিকায় ঢাকা বিভাগীয় পর্যায়ের ইনোভেশন সংক্রান্ত ফিডব্যাক কর্মশালা অনুষ্ঠিত হলো ঢাকাস্থ মিরপুর ইউসেফ অডিটোরিয়মে।কর্মশালায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে গুরুত্বপূর্ণ বক্তব্য ও পরামর্শ প্রদান করেন প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ড. মো: আবু হেনা মোস্তফা কামাল, এনডিসি ( অতিরিক্ত সচিব) ।
তিনি বলেন,প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের পরিচালনায় প্রাথমিক শিক্ষা বিভাগে গত অর্থ বছরে ১৭২টি ইনোভেশন কার্যক্রম বাস্থবায়িত হয়েছে আর চলতি বছরে ২৮২টি ইনোভেশন বাস্থবায়নাধীন, যেখানে দেশের অন্যান্য বড় বড় মন্ত্রণালয়ের এর সংখ্যা ১০/১২টি বেশি নয়। তিনি আরো বলেন, বিশাল পরিসংখ্যান এবং বিপুল সফলতার কথা জেনে সরকারের মাননীয় মন্ত্রীপরিষদ সচিব মহোদয় অভিভূত হয়েছেন।তিনি উপস্থিত সংশ্লিষ্ট সকলকে এ বছরে ২৮২টি ইনোভেশন বাস্থবায়নের জন্য উৎসাহিত করেছেন, সেই সাথে তিনি ঢাকা বিভাগে সফলতার সাথে অধিকসংখ্যক উদ্ভাবনী কার্যক্রম পরিচালনার জন্য বিভাগীয় উপ পরিচালক ইন্দু ভূষণদেব সহ সংশ্লিষ্ট সকলের ভূয়সী প্রশংসা করেন।

সভায় মহাপরিচালক আরো বলেন, প্রচলিত ধ্যান ধারনা থেকে বের হয়ে নতুন ধ্যান -ধারনায় অভিষিক্ত হয়ে এবং উদ্ভাবনী মনোভাব নিয়ে সংশ্লিষ্ট সকলকে কঠোরভাবে পরিশ্রম করে মানসম্মত প্রাথমিক শিক্ষা নিশ্চিত করে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সোনার বাংলা গড়ে তুলতে হবে।

কর্মশালায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, অতিরিক্ত মহাপরিচালক মো: রমজান আলী( অতিরিক্ত সচিব), পরিচালক( প্রশাসন) মো: সাবের হোসেন (যুগ্ম সচিব)।

কর্মশালায় সভাপতিত্ব করেন ঢাকা বিভাগের বিভাগীয় উপ পরিচালক ইন্দু ভূষণ দেব।

কর্মশালায় অংশগ্রহণকারী ময়মনসিংহ জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মোহাম্মদ মোফাজ্জল উপস্থিত সকলকে জানান যে, আমার ময়মনসিংহ জেলায় ৫টি উদ্ভাবনী কার্যক্রম হাতে নেয়া হয়েছে তা হলো- ১) সকল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়সমূহের ভৌগলিক অবস্থান, দূরত্ব সম্বলিত নির্দেশিকা বোর্ড প্রধান প্রধান সড়কে স্থাপন , ২) শতভাগ শিশুদের লেখা ও পড়ার দক্ষতা অর্জনের নিমিত্তে বাংলা, ইংরেজি ও গণিত বিষয়ের পৃথক পৃথক খাতা ব্যবহার নিশ্চিত করা, ৩) সকল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শহীদ মিনার স্থাপন, ৪) সকল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে একই দিনে ও একই সময়ে জঙ্গিবাদ বিরোধী মা সমাবেশের আয়োজন করা এবং ৫) সকল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সততার স্টোর ও মহানুভবতার দেয়াল স্থাপন করা। তার মধ্যে ১ নং কার্যক্রম টি ইতোমধ্যেই শতভাগ বাস্থবায়িত হয়েছে অন্যান্যগুলো বাস্থবায়নাধীন রেয়েছে।
উল্লেখিত ইনোভেশন কার্যক্রমগুলো কর্মশালায় উপস্থাপন করায় কর্মশালায় উপস্থিত প্রধান অতিথি, বিশেষ অতিথি সহ উপস্থিত সকলেই ময়মনসিংহ জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মোহাম্মদ মোফাজ্জল হোসেনকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেছেন, বাকী ৪টি উদ্ভাবনী কার্যক্রম সফলভাবে বাস্তবায়ন করে প্রাথমি শিক্ষার গুনগত মানকে সর্বোচ্চ পর্যায়ে নিয়ে যেতে হবে।

একই ধরনের আরও সংবাদ