অধিকার ও সত্যের পক্ষে

জিপিএ-৫ পেলেও জানা হলনা ইমনের!

 মোঃ মোশারফ হোসেন

শেরপুরের নকলা উপজেলার গৌড়দ্বার বি এল হাইস্কুল হতে ২০১৮ সালের এসএসসি পরীক্ষায় জিপিএ-৫ পেলেও জানা হলনা ইমনের। ইমন পরীক্ষা দেওয়ার পরে কিডনী রোগে আক্রান্ত হয়ে গত মাসের ১০ তারিখ মঙ্গলবার নাফেরার দেশে চলেগেছে। সে উপজেলার গৌড়দ্বার ইউনিয়েনের ছাতুগাঁও গ্রামের সাদেকুজ্জামান কালামের ছেলে ছিল।

৬ মে রোববার এসএসসি বা সমমানের পরীক্ষার ফলাফল প্রাপ্ত সবার মাঝে আনন্দ উল্লাসের কমতি না থাকলেও, গৌড়দ্বার বি এল হাইস্কুলের শিক্ষার্থী ইমন বিজ্ঞান শাখা থেকে জিপিএ-৫ পেলেও তার বাবা-মা, শিক্ষক, সহপাঠীসহ এলাকার সবার মনে আনন্দের পরিবর্তে বইছে শোকের ছায়া।

ইমনের বাবা কান্না জড়িত কণ্ঠে বলেন, কিডনী রোগে আক্রান্ত হয়ে গত মাসের ১০ তারিখে আমাদের বুকের ধন ইমন, আমাদের কষ্টে রেখে না ফেরার দেশে চলে গেছে। ভালোভাবে পরীক্ষা শেষ করার কিছুদিন পরে হঠাৎ তার শরীরে নানান সমস্যা দেখা দেয়। ডাক্তারের পরামর্শে কিডনী রোগের উন্নত চিকিৎসা দিলেও তাকে নাফেরার দেশের পথ থেকে ফিরানো সম্ভব হয়নি।

এবিষয়ে গৌড়দ্বার বি এল হাইস্কুলের প্রধান শিক্ষক মোহাম্মদ কামরুল আলম খান জানান, ইমন অত্যন্ত মেধাবী, বিনয়ী ও শান্ত প্রকৃতির ছেলে ছিল। ইমনের অভাব পুরন করা তার পরিবারের পক্ষে কোন দিন হয়ত সম্ভব হবে না বলে তিনি মন্তব্য করেন। ইমনকে পাঠদানকারী শিক্ষক মোঃ রেফাজ উদ্দিন ও জাহাঙ্গীর হোসেন জানান, ইমন এতটাই মেধাবী ছিল যে, ছোটরাতো বটেই মাঝে মধ্যে সহপাঠীরাও তার কাছথেকে বিভিন্ন বিষয়ে শিখে নিতে দেখেছেন তারা। এলাকার শিক্ষানুরাগী মমিনুল ইসলাম সুমন জানান, তারা ইমনকে কোন প্রকার আড্ডা দেওয়াতো দূরের কথা, স্কুলে আসা-যাওয়া ছাড়া রাস্তাঘাটে হাটতে পর্যন্ত কোন দিন দেখেননি তারা। ইমনের সহপাঠীরা ফলাফল ভালো করলেও ইমন ছাড়া তাদের মনেও নেই কোন আনন্দের ছাপ।

একই ধরনের আরও সংবাদ