অধিকার ও সত্যের পক্ষে

শিক্ষার আলো ছড়াচ্ছে বাতাকান্দি সরকার সাহেব আলী আবুল হোসেন মেমোরিয়াল উচ্চ বিদ্যালয়

 মোহাম্মদ শাহজামানঃ

বৃহত্তর দাউদকান্দির কৃতিসন্তান বিশিষ্ট শিক্ষানুরাগী, সমাজ সেবক ও দানবীর মরহুম বেলায়েত হোসেন সরকার ১৯৭৬ সালে বর্তমান তিতাস তৎকালীন দাউদকান্দি উপজেলার অবহেলিত উত্তরাঞ্চলের উচ্চ শিক্ষা বঞ্চিত শিক্ষার্থীদের শিক্ষার সহজতর সুযোগ সৃষ্টির মানসে শহীদ কাসেম মনির মহাবিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার উদ্যোগ নেন। তাঁর ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় সকল আনুষ্ঠানিকতা এবং প্রয়োজনীয় প্রশাসনিক ও শিক্ষা কার্যক্রম সম্পন্ন করা সত্ত্বেও নানাহ প্রতিবন্ধকতার কারণে এ মহতী উদ্যোগটি মুখ থুবড়ে পড়ে।

তবে হাল ছাড়েননি মরহুম বেলায়েত হোসেন সরকার। একই ভূমিতে ১৯৭৬ সালে প্রতিষ্ঠা করেন বাতাকান্দি সরকার সাহেব আলী আবুল হোসেন মেমোরিয়াল উচ্চ বিদ্যালয়। এলাকার হত-দরিদ্র,নারী-পুরুষ,নির্বিশেষে সকল শ্রেণী পেশার মানুষের সন্তানদের শিক্ষার আলোকে আলোকিত করার মহান ব্রত তাঁকে এবং বিদ্যালয়েটিকে ইতিহাসের পাতায় ঠাঁই করে দিয়েছে বলেই এলাকাবাসীর দৃঢ় বিশ্বাস।

বিদ্যালয়টি তিতাস উপজেলা থেকে ৪ কিলোমিটার উত্তরে শহীদ আবুল কাশেম সড়কের দক্ষিণ পার্শ্বে মনোরম পরিবেশে অবস্থিত। বিদ্যালয়টি জগতপুর ও বলরামপুর ইউনিয়নের সীমানা নির্ধারকও বটে।

বাতাকান্দি সরকার সাহেব আলী আবুল হোসেন মেমোরিয়াল উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ও উক্ত বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা বিশিষ্ট সমাজসেবক মরহুম বেলায়াত হোসেন সরকারের সহধর্মিণী এবং তিতাস উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান পারভেজ হোসেন সরকারের মা নাজমা বেগম ৬৩ বছর বয়সে চলে গেলেন না ফেরার দেশে।

১৯৯৩ সালে তাঁর মৃত্যুর পর বিদ্যালয়টি খুব অনিশ্চয়তার মধ্যে দিয়ে যখন যাচ্ছিল এমনই এক সময়ে দায়িত্ব নিয়ে এগিয়ে প্রতিষ্ঠার ছোট ভাই মো. মোকবল হোসেন সরকার এবং মো.মোকবল হোসেন সরকারের মৃত্যুর পর জনাবা বেগম বেগম নিজ কাঁধে তুলে নিলেন স্বামী মরহুম বেলায়েত হোসেন সরকারের অপূর্ণ স্বপ্ন পূরনের দায়িত্ব। এলাকার মানুষের মধ্যে শিক্ষার আলো সহজ লভ্য করে তুলতে সচেষ্ট হয়ে উঠেন তিনি।

নাজমা বেগম ২০০২ সালে ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি হিসাবে দায়িত্ব গ্রহনের পর থেকেই তিনি বিদ্যালয়টির উন্নয়নে সার্বিক ব্যবস্থা গ্রহন করেন। বিদ্যালয়ের সীমানা প্রাচীর নির্মাণ, বিশাল মাঠটি ভরাট করে সারা বছর ব্যবহার উপযোগী করা, দুইটি দোতলা ভবন নির্মান প্রভৃতি উন্নয়নমূলক কাজগুলো তার উদ্যোগে সম্পন্ন হয়।

মরহুম বেলায়েত হোসেন সরকার প্রায় ৪ একর জায়গার উপর বিদ্যালয়টি স্থাপন করে গেলেও এর পূর্ণাঙ্গ উন্নয়ন সম্পন্ন করে যেতে পারেননি। বাতাকান্দি উচ্চ বিদ্যালয় বিদ্যালয়ের জেএসসি, এসএসসির ফলাফলে আসে ঈর্ষনীয় সাফল্য। এরই পুরস্কার হিসেবে বাতাকান্দি সরকার সাহেব আলী আবুল হোসেন মেমোরিয়াল উচ্চ বিদ্যালয় লাভ করে ব্রিটিশ কাউন্সিল প্রদত্ত International School Award (ISA) পুরস্কার। সেকায়েপ (SEQAEP) প্রদত্ত Incentive Achievement Award (IAA) পুরস্কার যার প্রাইজমানি ১ লক্ষ টাকা। ২০১৫ সালে বিদ্যালয়ের সভাপতি জনাবা নাজমা বেগম এর মৃত্যুর বিদ্যালয়ের সভাপতি হন তিতাস উপজেলা পরিষদের সাবেক

চেয়ারম্যান পারভেজ হোসেন সরকার। বর্তমানে ছাত্র/ছাত্রী ১৪০০ জন (প্রায়)।

তথ্য সংগ্রহেঃ মোহাম্মদ শাহজামান শুভ
সহকারি শিক্ষক
বাতাকান্দি সরকার সাহেব আলী আবুল হোসেন মেমোরিয়াল উচ্চ বিদ্যালয়
তিতাস,কুমিল্লা।

একই ধরনের আরও সংবাদ