অধিকার ও সত্যের পক্ষে

পাবনার সুজানগরের নাজিরগঞ্জ স্কুল অ্যান্ড কলেজে একযুগ অধ্যক্ষ শুন্য

 মোঃ আফতাব হোসেন, জেলা প্রতিনিধি, পাবনা।

পাবনার সুজানগরের নাজিরগঞ্জ স্কুল অ্যান্ড কলেজের দীর্ঘ প্রায় এক যুগ যাবত অধ্যক্ষ’র পদ শুন্য রয়েছে। নিয়মিত অধ্যক্ষকে দায়িত্ব পালন করতে না দেয়ায় কলেজের পাঠদানসহ প্রশাসনিক কার্যক্রম ব্যহত হচ্ছে। খোজ নিয়ে জানা যায় ২০০৪ সালে উক্ত কলেজের তৎকালীণ পরিচালনা কমিটি অধ্যক্ষসহ বেশ কয়েকটি পদে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দিয়ে নিয়োগ পরীক্ষা সম্পূর্ণ করলেও শেষে অধ্যক্ষ পদ ছাড়া অন্য পদ গুলোতে নিয়োগ দেওয়া হয়।

পরবর্তীতে নিয়োগ বাণিজ্যসহ বহুবিদ দূর্নীতি ও অসদাচরণের দায়ে পরিচালনা কমিটি প্রধান শিক্ষক সচিন্দ্রনাথ দাসকে ২০০৫ সালে চাকুরী থেকে বরখাস্ত করে প্রতিষ্ঠানের সহকারী প্রধান শিক্ষক নিজাম উদ্দীনকে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ হিসেবে দায়িত্ব দেওয়া হয়। এরপর ২০০৬ সালে নিয়মিত পরিচালনা কমিটি বিধি মোতাবেক অধ্যক্ষ হিসেবে নাদের হোসেনকে নিয়োগ দেন। কিন্তু ২০০৯ সালে কলেজের নতুন কমিটি শুধুমাত্র রাজনৈতিক কারণে নাদের হোসেনকে অনিয়মতান্ত্রিক ভাবে অপসারন করে পরবর্তিতে কলেজের নতুন কমিটি চাকুরী বিধি উপেক্ষা করে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ নিজাম উদ্দিনকেও সরিয়ে কলেজের জুনিয়র প্রভাষক পল্টু কুমার সাহাকে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ হিসেবে দায়িত্ব দেন।

দায়িত্ব দেওয়ার পর থেকেই তার বিরুদ্ধে জ্যেষ্ঠতা লংঘন এবং পরবর্তীতে দূর্নীতির বিভিন্ন অভিযোগ করে আসছিলেন শিক্ষক ও এলাকাবাসী। এরই এক পর্যায়ে কলেজের জ্যেষ্ঠ শিক্ষক মৃত্যুঞ্জয় কুমার রাজশাহী শিক্ষাবোর্ড বরাবর পল্টু কুমার সাহার বিরুদ্ধে অভিযোগ করেন। অভিযোগের ভিত্তিতে রাজশাহী শিক্ষাবোর্ড পল্টু কুমার সাহাকে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের দায়িত্ব থেকে অপসারণ করে মৃত্যুঞ্জয় কুমারকে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের দায়িত্ব দেন। দায়িত্ব দেয়ার বিষয়টি পল্টু কুমার সাহা চ্যলেঞ্জ করলে শিক্ষাবোর্ড মৃত্যুঞ্জয় কুমারের দায়িত্ব দেয়ার বিষয়টি বিধিসম্মত না হওয়ায় তা প্রত্যাহার করে নেন। কিন্তু রাজনৈতিক প্রভাবে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষের দায়িত্ব অধ্যাবধি অবৈধভাবেই পালন করছেন মৃত্যুঞ্জয় কুমার।

অভিভাবক মহল ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, শুধুমাত্র রাজনৈতিক প্রতিহিংসার কারনে দীর্ঘ প্রায় একযুগ ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ দিয়ে কলেজের কার্যক্রম চলায় প্রশাসনিক ব্যবস্থা একেবারেই ভেঙ্গে পড়েছে। ফলে ছাত্র-ছাত্রীদের পাঠদান ভীষণভাবে ব্যহত হচ্ছে। এ ব্যাপারে ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মৃত্যুঞ্জয় কুমার বলেন অধ্যক্ষ নিয়োগ সংক্রান্ত কোর্টে মামলা থাকায় নিয়োগের কার্যক্রম সম্পূর্ন করা যাচ্ছে না।

একই ধরনের আরও সংবাদ