অধিকার ও সত্যের পক্ষে

২১ শতকের শিক্ষক ও শিক্ষকের দক্ষতা

 মো: ফজলে রিাব্বিঃ

২১ শতকের প্রেক্ষাপটে শিক্ষার্থীদের কর্মক্ষম, আন্তর্জাতিক প্রতিযোগিতায় পারঙ্গম, এবং জটিল রাজনৈতিক চ্যালেঞ্জের জন্য উপযোগী ভবিষ্যৎ নাগরিক হিসাবে শিক্ষিত করতে হলে শিক্ষকদের কিছু বিশেষ দক্ষতা থাকা প্রয়োজন। The American Association of Colleges for Teacher Education (AACTE) advisory group সেপ্টেম্বর, ২০১০ “ 21ST CENTURY KNOWLEDGE AND SKILLS IN EDUCATOR PREPARATION” শীর্ষক এক কর্মশালায় একুশ শতকের শিক্ষকদের যে বিশেষ দক্ষতাসমূহ থাকা আবশ্যক বলে উল্লেখ করে, সেগুলো হলোঃ

১। ঝুঁকি গ্রহণকারী ( The risk taker): শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বা অন্য কোন উৎস থেকে প্রাপ্তির অপেক্ষা না করে শ্রেণিকার্য পরিচালনার জন্য প্রয়োজনীয় শিক্ষোপকরণ শিক্ষকদের নিজের উদ্যোগে সংগ্রহ করতে সক্ষমতা থাকতে হবে। এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ঝুঁকি নিতেও শিক্ষকগন প্রস্তুত থাকবেন।

২। সহায়তাকারী (The Collaborator) : শিক্ষক তাঁর শিক্ষার্থীদের বিনামূল্যে অত্যন্ত কার্যকর প্রযুক্তি নির্ভর শিখন-শেখানো তথ্যভাণ্ডারের খোজখবর দেয়া এবং সরবরাহ করতে সক্ষম হবেন।

৩। মডেল (Model): শিক্ষক হবেন একজন সু-চিন্তক,সহনশীল, বৈশ্বিক সচেতন, আত্নবিশ্বাসী, সুবিচারক, শিক্ষার্থীর প্রতি অত্যন্ত আন্তরিক, সদালাপি প্রভৃতি গুণের অধিকারী। যেন তাঁর ব্যাক্তিত্বপূর্ণ আদর্শ শিক্ষার্থীদের উপর প্রতিফলিত হয়ে ভবিষ্যতে সু-নাগরিগ সৃষ্টি হয়।

৪। নেতা (The leader): বর্তমান শতকে বাস্তব জীবনে বিভিন্ন কাজে সফলতা অর্জনের ক্ষেত্রে নেতৃত্বদানের দক্ষতা গুরুত্বপূর্ণ গুণ। শিক্ষার্থীরা ভবিষ্যতে এই নেতৃত্ব যেন সবসময় ইতিবাচক ক্ষেত্রে প্রয়োগ করে, কখনই যেন নেতিবাচক ক্ষেত্রে প্রয়োগ না করে সে মূল্যবোধ সৃষ্টিতে শিক্ষক অত্যন্ত পারদর্শী হবেন।

৫। দূরদর্শী (The visionary ): শিক্ষকদের কল্পনাপ্রবণ হতে হবে। তাঁরা সব সময় ইতিবাচক দৃষ্টিভংগী নিয়ে উঠতি প্রযুক্তির সম্ভাবনাময় দিকগুলোর সাথে শিক্ষাক্রমের সাথে করে সমন্বয় সাধন এবং সাথে সাথে ভবিষ্যৎ কর্ম পরিকল্পনা গ্রহণ করতে সক্ষম হবেন।

৬। ভালো পাঠক ( learner): শিক্ষকদের সদা পরিবর্তনশীলতার সাথে তাল মিলিয়ে চলমান প্রযুক্তি ব্যবহার করে যে কোনো সময় প্রয়োজনীয় জ্ঞান ও দক্ষতা অর্জনে সচেষ্ট থাকতে হবে অর্থাৎ একজন ভালো শিক্ষক আজীবন ছাত্র।

৭। একজন Communicator : ২১ শতকের শিক্ষকদের তথ্য প্রযুক্তি অত্যন্ত সাবলীলভাবে ব্যবহারের যোগ্যতা থাকতে হবে। পারস্পরিক যোগাযোগের ক্ষেত্রে তাঁদের অবশ্যই মধ্যপন্থী হিসাবে কাজ করার মনোভাব নিয়ে সহজে অন্যকে উদ্দীপ্ত করা, যে কোনো পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রন করা এবং পরিচালনা করার দক্ষতা থাকতে হবে।

৮। অভিযোজন ক্ষমতাসম্পন্ন (The adaptor) : স্থান-কাল-পাত্রের উর্দ্ধে থেকে সময়োপযোগী ও নতুন শিক্ষাক্রম অনুযায়ী শিখন-শেখানো কার্যাবলী পরিচালনা করা, নতুন অভিজ্ঞতা অর্জন, প্রয়োজনীয় তথ্য-প্রযুক্তিগত প্রশিক্ষণে ইতিবাচক মানসিক প্রস্তুতি প্রভৃতি ক্ষেত্রে সংগতিবিধান করার দক্ষতা থাকতে হবে।

(B) একুশ শতকের শিক্ষকের ডিজিটাল দক্ষতাসমূহঃ

আজ এ কথা বলার অপেক্ষা রাখে না যে, শিক্ষা পেডাগজি এবং তথ্যপ্রযুক্তির সমন্বয় ছাড়া একুশ শতকের শিক্ষার্থীদের জন্য শিখন–শেখানো পরিবেশ সৃষ্টি করা সম্ভব নয়। তাই বর্তমান শতকে শিক্ষকদের ডিজিটাল দক্ষতা থাকা সময়ের অনিবার্য দাবী। University College London (UCL) ( public research university) এর অধীনে E-Learning Environments প্রযেক্ট কতৃক আয়োজিত “The Digital Department-Workshop at 2012 AUA Conference” একুশ শতকের শিক্ষকের ৩৩টি ডিজিটাল দক্ষতার প্রস্তাব করে। ১৫জুন, ২০১২ অনলাইনে Clive young কতৃক প্রকাশিত সেই ৩৩টি দক্ষতাকে আমাদের দেশের শিক্ষকদের দীর্ঘদিনের পেশাগত দক্ষতা এবং তথ্য-প্রযুক্তিগত জ্ঞান ও দক্ষতার উপর ভিত্তি করে কয়েকটি ক্যাটাগরিতে ভাগ করে দক্ষতাগুলো হলোঃ

(ক) সাধারণ দক্ষতাঃ

১। বিনামূল্যে প্রাপ্ত সফটওয়ার বা অনলাইনে বিভিন্ন টুলস ব্যবহার করে ডিজিটাল অডিও তৈরি ও এডিট করার দক্ষতা।

২। বিনামূল্যে প্রাপ্ত সফটওয়ার বা অনলাইনে বিভিন্ন টুলস ব্যবহার করে ডিজিটাল ছবি তৈরি ও এডিট করার দক্ষতা।

৩। বিনামূল্যে প্রাপ্ত সফটওয়ার বা অনলাইনে বিভিন্ন টুলস ব্যবহার করে ভিডিও সংগ্রহ এবং প্রদর্শন করার দক্ষতা।

৪। বিভিন্ন ধরনের প্রেজেন্টেশন তৈরি এবং শেয়ার করার দক্ষতাঃ প্রেজেন্টেশন তৈরি এবং স্লাইড প্রদর্শন করা একজন শিক্ষকের গুরুত্বপূর্ণ ও আবশ্যিক একটি কাজ।

৫। অনলাইনে বিনামূল্যে পাওয়া যায় এমন ছবির ভান্ডার খুঁজে বের করা তা প্রয়োজনে প্রিন্ট করার দক্ষতা।

৬। সটিক Keyword এর সাহায্যে স্বল্প সময়ে কার্যকরী Search query ব্যবহার করার দক্ষতা।

৭। তথ্য-প্রযুক্তি ক্ষেত্রে ব্যবহার উপযোগী বিভিন্ন ধরনের ইলেক্ট্রনিক ডিভাইস ব্যবহার করার দক্ষতা।

৮। শ্রেণি ও পাঠ উপযোগী প্রয়োজনীয় এবং নির্ভরশীল ওয়েবসাইট ভিত্তিক কনটেন্ট খুজে বের করা এবং তা মূল্যায়ন করা।

৯। শ্রেণিকক্ষে বিভিন্ন ধরনের শিক্ষামূলক ভিডিও-অডিও সম্বলিত ওয়েবসাইট যেমনঃ YouTube ব্যবহারের উপায়সমূহ জানা থাকতে হবে।

(খ) চিন্তনমূলক এবং সামাজিক যোগাযোগের দক্ষতাঃ

১০। সামাজিক ওয়েবসাইট ব্যবহারের মাধ্যমে সহকর্মীদের সাথে আন্তঃ যোগাযোগ স্থাপন করে পেশাগত দক্ষতা উন্নয়ন,পরিবর্ধন ও পরিমার্জন করার দক্ষতা।

১১। ফাইল শেয়ারিং টুলস ব্যবহার করে অনলাইনে বিভিন্ন ধরনের ডক্যুমেন্ট এবং ফাইল আদান-প্রদান করার দক্ষতা।

১২। বিভিন্ন ধরনের Web browser ব্যবহার করে প্রয়োজনীয় Website এর Bookmarking list তৈরি, বিভিন্ন ফরমেটের ফাইল ডাউনলোড করে তা শিক্ষার্থীদের সরবারাহ করা।

১৩। শ্রেণিকক্ষে ব্যবহার উপযোগী ওয়েব কনটেন্ট যাচাই-বাছাই করার দক্ষতা।

১৪।বিভিন্ন ধরনের Task management tools ব্যবহার করে নিজস্ব কর্ম পরিকল্পনা তৈরি করা এবং তা শিক্ষার্থীদের সরবরাহ করার দক্ষতা।

১৫। যে-কোনো সফটওয়ার ব্যবহারে কপিরাইট আইন সম্পর্কে নিজে সচেতন থাকা এবং শিক্ষার্থীদের মাঝে সচেতনতা সৃষ্টি করা।

১৬। শিক্ষার্থীদের জন্য নিরাপদ ও তাদের পক্ষে সহজে ব্যবহার উপযোগী বিভিন্ন ধরনের অনলাইন শিক্ষামূলক উপকরনের উৎস নির্দিষ্ট করা।

১৭। আকর্ষণীয় ধারনা সম্বলিত এবং দৃষ্টিনন্দন Sticky notes ব্যবহারের দক্ষতা।

১৮। অনলাইনে কাজ করার সময় বিশেষ নিরাপত্তা গ্রহণ করার দক্ষতা।

১৯। শ্রেণিকক্ষে বিভিন্ন web page এবং সেই page এর কোনো উদ্ধৃতাংশকে টীকা হিসাবে শিক্ষার্থীদের সাথে শেয়ার করার দক্ষতা।

(গ) গভীর চিন্তনমূলক দক্ষতাঃ

২০। ইনফোগ্রাফিক্স তৈরি করা এবং প্রদর্শন করাঃ মাঝে মাঝে বিভিন্ন তথ্য অনলাইন থেকে সংগ্রহ করে প্রদর্শন শিক্ষার্থীদের সামনে উপস্থাপন করতে হয়।

২১। Polling software ব্যবহার করে শ্রেণিকক্ষের পরিবেশ, শিক্ষোপকরণ গুণগত মান, শেখন-শেখানো পদ্ধতির মান প্রভৃতি দিকের রিয়েলটাইম সার্ভে করার দক্ষতা।

২২। শিক্ষার্থীদেরবুদ্ধিমত্তার প্রয়োগ এবং মেধার বিকাশে সহায়ক বিভিন্ন সিমুলেশন (পাঠসহায়ক ভিডিও গেম) ব্যবহারের নির্দেশনা প্রদান করার দক্ষতা।

২৩। বিভিন্ন Collaborative tools ব্যবহার করে শিক্ষার্থীদের জন্য বিভিন্ন ধরনের শিক্ষামূলক লিখা উপস্থাপন ও সম্পাদন করার দক্ষতা।

২৪। শিক্ষার্থীরা তাদের অর্পিত কাজ সম্পন্ন করতে ইন্টারনেট থেকে অন্য কারো সম্পাদিত কাজ সরাসরি কপি করছে কি-না তা নিশ্চিত হতে Plagiarism tools ব্যবহার করার দক্ষতা।

২৫। অনলাইনে বিভিন্ন tools ব্যবহার করে শিক্ষক-শিক্ষার্থী উভয়ই নিজেদের উন্নয়নের লক্ষ্যে Electronic Profile তৈরি করা এবং প্রয়োজনীয় নির্দেশনা প্রদানের দক্ষতা।

২৬। বিভিন্ন ব্লগ এবং উইকিপিডিয়া প্রনয়ণের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের জন্য অনলাইন পরিসর তৈরি করার দক্ষতা।

(ঘ) উচ্চতর দক্ষতাঃ

২৭। বিনামূল্যে প্রাপ্ত বা অনলাইন সফটওয়ার ব্যবহার করে Screen capture ভিডিও এবং ভিডিও টিউটোরিয়েল তৈরি করা।

২৮। শিক্ষার্থীদের শিক্ষার গুণগত মান যাচাই করার উদ্দেশ্যে ডিজিটাল কুইজ তৈরি করা এবং তা মূল্যায়নে ডিজিটাল টুলস ব্যবহার করার দক্ষতা।

২৯। অনলাইনে বিভিন্ন ধরনের টুলস ব্যবহার করে প্রয়োজনীয় নোট, কনটেন্ট সংগ্রহ করা এবং তা শিক্ষার্থীদের সাথে শেয়ার করার দক্ষতা।

৩০। বিভিন্ন Screen casting tools যেমনঃ aTubecatcher (Open Source) প্রভৃতির সাহায্যে Screen shot এর সাহায্যে তৈরি করা টিউটোরিয়েল শিক্ষার্থীদের সরবরাহ করা।

৩১। শিক্ষার্থীদের Group Assignment কাজে আন্তঃ যোগাযোগের জন্য Group messaging tools ব্যবহার করার দক্ষতা।

৩২। বিভিন্ন Digital tools ব্যবহার করে গবেষণা সহায়ক তথ্য, গবেষণা পত্র সংগ্রহ করার দক্ষতা।

৩৩। অনলাইনে বিভিন্ন ধরনের ডিজিটাল টুলস ব্যবহার করে শিক্ষকদের বাৎসরিক শিক্ষা-ক্যালেন্ডার তৈরির দক্ষতা।

 

মো: ফজলে রাব্বি

উপজেলা একাডেমিক সুপারভাইজার

হোমনা,কুমিল্লা ।

একই ধরনের আরও সংবাদ