অধিকার ও সত্যের পক্ষে

শিক্ষামন্ত্রীকে রাবির সমাবর্তনে গ্র্যাজুয়েটদের ‘না’

 রাবি প্রতিনিধি:

সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে আগামী ২৪ মার্চ অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের দশম সমাবর্তন। কাঙ্খিত এ সমাবর্তনে বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য ও রাষ্ট্রপতি মোহাম্মদ আব্দুল হামিদ থাকবেন না বলে নিশ্চিত করেন বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক এম আব্দুস সোবহান নিশ্চিত করেন, সমাবর্তনে বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্যের প্রতিনিধিত্ব করবেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ। আর সমাবর্তন বক্তা হিসেবে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের সিদ্ধান্তেই সম্মতি জ্ঞাপন করবেন শিক্ষামন্ত্রী।

এদিকে রাষ্ট্রপতিকে ছাড়াই বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাবর্তনের সিদ্ধান্তে অনেকটা ক্ষোভ প্রকাশ করছেন সমাবর্তন প্রার্থী ও বর্তমান শিক্ষার্থীরা। নিজেদের প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করছেন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে। অনেকেই দাবি করছেন, এটা প্রশাসনের ব্যর্থতা। কেননা ২০১৫ সালের ১৮ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত বিশ্ববিদ্যালয়ের নবম সমাবর্তনে সমাবর্তন বক্তা ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য রাষ্ট্রপতি মোহাম্মদ আব্দুল হামিদ।

বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন অনুসারে সমাবর্তনে আচার্য এবং তার অনুপস্থিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের সভাপতিত্ব করার কথা থাকলেও এতে আইনের কোন ব্যাপার ঘটেনি বলে মনে করছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য। অন্যদিকে রাষ্ট্রপতি ছাড়া রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাবর্তন সঠিক নয় বলে মন্তব্য করেন বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক মুহম্মদ মিজানউদ্দিন। তিনি বলেছেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের মর্যাদা ও গাম্ভীর্য রক্ষা করা সকলের দায়িত্ব।

তবে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের বক্তব্য, রাষ্ট্রপতি বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য। রাষ্ট্রপতির নির্দেশই আইন। রাষ্ট্রপতি বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাবর্তনের বিষয়ে যা বলবেন তাই পালনীয়। এর আগে ২০১৬ সালে যখন এই সমাবর্তন হওয়ার কথা ছিল সেসময় রাষ্ট্রপতি থাকবেন না জানিয়ে তার প্রতিনিধি হিসেবে সমাবর্তন অনুষ্ঠানে শিক্ষামন্ত্রীকে সভাপতিত্ব করার নির্দেশ দিয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করেন। তাই সমাবর্তনে শিক্ষামন্ত্রীই সভাপতিত্ব করবেন।

একই ধরনের আরও সংবাদ