অধিকার ও সত্যের পক্ষে

রংপুরে ১১ দফা দাবিতে এমপিওভুক্ত শিক্ষকদের বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ

 নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

জাতীয়করণ, সরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ন্যায় বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক-কর্মচারীদের ৫% বার্ষিক প্রবৃদ্ধি, পূর্ণাঙ্গ ভাড়া, উত্সব ভাতা, চিকিত্সা ভাতা ও বৈশাখী ভাতা প্রদানসহ ১১ দফা দাবিতে গতকাল রবিবার রংপুরে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। ৯টি শিক্ষক-কর্মচারী সংগঠনের সমন্বয়ে গঠিত শিক্ষক-কর্মচারী সংগ্রাম কমিটির উদ্যোগে দুপুরে রংপুর কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার চত্ত্বর থেকে দুপুরে বিশাল বিক্ষোভ মিছিল বের করা হয়। মিছিলটি নগরীর প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে রংপুর প্রেসক্লাবের সামনে গিয়ে শেষ হয়। পরে সেখানে বাংলাদেশ কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি (বাকবিশিস) রংপুর জেলা সভাপতি অধ্যক্ষ মো. আব্দুল ওয়াহেদ মিঞার সভাপতিত্বে ও বাংলাদেশ কলেজ শিক্ষক সমিতির (বিটিএ) শওকত হোসেন বিপু’র পরিচালনায় অনুষ্ঠিত সমাবেশে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, বাকবিশিস সাধারণ সম্পাদক রওশানুল কাওছার সংগ্রাম, সাংগঠনিক সম্পাদক অধ্যক্ষ মো. রেজাউল ইসলাম, মায়েন উদ্দিন শাহ সহ-সভাপতি অধ্যক্ষ আ.খ.ম. জয়নুল আবেদীন, বিটিএ নেতা মো. আশরাফুল ইসলাম, আবু আজাদ হোসেন, মো. আব্দুল হাই, অধ্যক্ষ হাসান ইসলাম, আব্দুল হাসান, নিরব হোসেন লাবলু, সামসুল হক রওকন, মোহাম্মদ আলী, আশলাফুল ইসলাম, আহসান হাবীব রবু প্রমুখ।

সভায় বক্তারা বলেন, মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী ৯টি শিক্ষক-কর্মচারী সংগঠনের সমন্বয়ে গঠিত যৌথ মোর্চা শিক্ষক কর্মচারী সংগ্রাম কমিটির দেয়া শিক্ষা ব্যবস্থা জাতীয়কণের ১১ দফা দাবি অবিলম্বে বাস্তবায়ন করতে হবে। কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের আহ্বানে গত ৯ জানুয়ারি উপজেলা পর্যায়ে, ১৪ জানুয়ারি জেলা পর্যায়ে যথাযথ কর্তৃপক্ষের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী, অর্থমন্ত্রী ও শিক্ষামন্ত্রী বরাবরে স্মারকলিপি প্রদান করা হয়। সরকার দাবি না মানায় গত ২৩ জানুয়ারি থেকে সারাদেশের সব বেসরকারি স্কুল-কলেজে অবিরাম ধর্মঘট চলছে। কিন্তু সরকার এখনো দাবি পূরণের কোন উদ্যোগ গ্রহণ করেননি। আগামী ১ ফেব্রয়ারি থেকে এসএসসি পরীক্ষা শুরু হবে। ধর্মঘটের কারণে অনেক প্রতিষ্ঠান শিক্ষার্থীদের প্রবেশপত্র দিতে পারেননি। কেন্দ্রীয় নেতৃেবৃন্দের আহ্বানে পরীক্ষার্থীদের স্বার্থে এসএসসি পরীক্ষার কারণে আজ সোমবার থেকে আগামী ১০ মার্চ পর্যন্ত ধর্মঘট স্থগিত থাকবে।

আগামী ১৬ ফেব্রুয়ারি সংগ্রাম কমিটিভুক্ত সংগঠনসমূহের জেলা, উপজেলা নেতৃবৃন্দের নিয়ে ঢাকায় সম্মেলন অনুষ্ঠিত হবে। এই সময়ের মধ্যে যদি সরকার ১১ দফা দাবি মেনে না নেয় তাহলে আগামী ১১ মার্চ থেকে আবারো অবিরাম ধর্মঘট শুরু হবে। আগামী ১৪ মার্চ ঢাকায় মহাসমাবেশ শেষে দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত অবিরাম অবস্থান কর্মসূচি চলবে।

একই ধরনের আরও সংবাদ