অধিকার ও সত্যের পথে

চাকুরী জাতীয়করনের দাবীতে বাগেরহাট প্রেসক্লাবের সামনে বেসরকারী শিক্ষকদের মানববন্ধন

 মো: মোজাহিদুর রহমান

সারাদেশে আজ চাকুরী জাতীয়করনের দাবীতে বেসরকারী শিক্ষকদের মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। গত ১০তারিখ থেকে বেসরকারী শিক্ষকরা ঢাকা প্রেসক্লাবের সামনে চাকুরী জাতীয়করনের দাবীতে অবস্থান করছে। এ ব্যাপারে বেসরকারী শিক্ষক সংগঠন সরকারের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করছেন।
বাগেরহাটে বেসরকারি শিক্ষক কর্মচারিদের নয়টি সংগঠন মানববন্ধন কর্মসুচি পালন করেছে। রোববার সকালে বাগেরহাট প্রেসকাবের সামনে শিক্ষক-কর্মচারি সংগ্রাম কমিটির ব্যানারে ঘন্টাব্যাপী এই মানববন্ধন কর্মসুচি পালন করা হয়।
মানববন্ধনে বাংলাদেশ শিক্ষক সমিতি, কলেজ শিক্ষক সমিতি, কলেজ বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি, কারিগরি কলেজ শিক্ষক সমিতিসহ মোট নয়টি সংগঠনের নেত্রীবৃন্দ অংশ নেন।
মানববন্ধনে বক্তব্য দেন, শিক্ষক সমিতির বাগেরহাট জেলা শাখার সভাপতি ও শিক্ষক কর্মচারি সংগ্রাম কমিটির আহ্বায়ক সমন্বনকারী মুকুন্দ কুমার দাস, সদর উপজেলার আহবায়ক হুমায়ুন কবির, শিক্ষক কর্মচারি সংগ্রাম কমিটির যুগ্ন আহ্বায়ক ঝিমি মন্ডল, হরিচাদ বিশ্বাস ও আব্দুল আলীম, নিখিল চন্দ্র, আ: ছত্তার, প্রহলাদ চন্দ্র হীরা, এ সুকুর আলী খান, হোসনেয়ারা খাতুন, কামরুননাহার, লাভলী খাতুন প্রমূখ।
বক্তরা বলেন, বেসরকারি সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসা একসঙ্গে জাতীয়করণ করতে হবে। আমরা ১১ দফা দাবিতে নয়টি সংগঠন একত্রিত হয়ে এই আন্দোলন করছি। শিক্ষা যদি জাতির মেরুদন্ড হয় তাহলে এক্ষেত্রে বৈষম্য বিরাজ করছে। তৃণমুল পর্যায়ে আমরা যারা মাধ্যমিক, উচ্চ মাধ্যমিকে অবহেলিত শিক্ষক কর্মচারি রয়েছি তাদের অবিলম্বে জাতীয়করণ করতে হবে। তাহলেই বৈষম্যদূর হবে।

দাবিগুলোর মধ্যে রয়েছে শিক্ষা ব্যবস্থা জাতীয়করণ করা, সরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ন্যায় বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক কর্মচারিদের ৫ ভাগ বার্ষিক প্রবৃদ্ধি উৎসব, বৈশাখী ভাতা, পূর্ণাঙ্গ বাড়ীভাড়া, চিকিৎসাভাতা, অনুপাত প্রথা বিলুপ্ত করে সহকারি সহযোগি অধ্যাপক ও অধ্যাপক পদে পদোন্নতি দেওয়াসহ ১১ দফা দাবি।

একই ধরনের আরও সংবাদ