অধিকার ও সত্যের পক্ষে

ব‌টিয়াঘাটায় পুলিশের ইভটিজিংয়ের শিকার নবম শ্রেণীর প্রিয়া

 নিজস্ব প্রতিনিধিঃ

খুলনার বটিয়াঘাটা উপজেলার খারাবাদ বাইনতলা পুলিশ ফাঁড়ির ৫পুলিশ সদস্যকে কোচিং এলাকায় ইভটিজিংয়ের দায়ে ক্লোজড ও সকল সদস্যকে প্রত্যাহার করে নেওয়া হয়েছে।

ঘটনাটি ঘটেছে ৯ জানুয়ারী (মঙ্গলবার) সকাল সাড়ে ৮টার দিকে।
জানা গেছে, উপজেলার নারায়নখালী গ্রামের জনৈক মুজিবর রহমানের ৯ম শ্রেণীতে পড়ুয়া কন্যা পিয়া প্রতিদিনের মত মঙ্গলবার সকালে ক্যাম্প সংলগ্ন শুভেচ্ছা কোচিং-এ পড়তে যায়। সকাল সাড়ে ৮টার দিকে পিয়া কোচিং সেরে বাড়ির উদ্দেশ্যে রওনা দিলে ক্যাম্পে নিযুক্ত ৫জন পুলিশ কনষ্টেবল তাকে উত্যক্ত করে এবং ডাক দেয়। পিয়া বিষয়টি তার আপন বড় ভাই পার্শ্ববর্তী কম্পিউটার দোকানদার তরিকুল ইসলামকে জানায়। তরিকুল সংঙ্গে সংঙ্গে তার বোনকে কি কারনে ডাকা হয়েছে বলে পুলিশ সদস্যদের কাছে জানতে চায়। তখন পুলিশ সদস্যরা ক্ষিপ্ত হয়ে তরিকুলকে ধরে নিয়ে ক্যাম্পের রুমের মধ্যে আটকে রেখে মারধর শুরু করে। স্থানীয় এলাকাবাসী জানতে পেরে সম্মিলিত ভাবে ক্যাম্প ঘিরে ফেলে এবং রুমে তালা লাগিয়ে দেয়। খবর পেয়ে, ভারপ্রাপ্ত পুলিশ সুপার মোঃ নাইমুল হক ও থানার ওসি মোঃ মোজাম্মেল হক মামুন ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। ভারপ্রাপ্ত পুলিশ সুপার তাৎক্ষনিকভাবে ঘটনার সাথে জড়িত নায়েক জাহিদ(কঃনং-৪২৪), নাইম(কঃনং-২২০৮), সুমন্ত(কঃনং-২২৯৭), রিয়াজ(কঃনং-৯৮৫), আবির(কঃনং-১৬৮৩) ৫পুলিশ সদস্যকে পুলিশ লাইনে ক্লোজড করেন। এছাড়াও দ্বায়িত্বে অবহেলার দায়ে ফাঁড়ির ইনচার্জ সহ অন্য ৬ পুলিশ সদস্যকেও প্রত্যাহার করে নেন। এ ব্যাপারে ভারপ্রাপ্ত পুলিশ সুপার নাঈমুল হক জানান, তাৎক্ষনিকভাবে ঘটনাস্থলে গিয়ে সকল পুলিশ সদস্যদের প্রত্যাহার করে নেওয়া হয়েছে। ঘটনার সাথে জড়িতদের বিরুদ্ধে বিভাগীয় ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

একই ধরনের আরও সংবাদ