অধিকার ও সত্যের পক্ষে

ড.মিয়া আব্বাস উদ্দিন আর নেই

 মো.মেহেদী হাসানঃ

বাগেরহাট -৪ (মোরেলগঞ্জ-শরণখোলা) আসনের সাবেক সংসদ সদস্য ড.মিয়া আব্বাস উদ্দিন আর নেই। বৃহস্পতিবার সকাল ৭ টায় চিরনিদ্রায় শায়িত হয়ে চলে গেলেন না ফেরার দেশে। (ইন্নালিল্লাহে অইন্না ইলাহি রাজিউন)। তিনি কানাডার রাজধানী অটোয়ার একটি হাসপতালে দীর্ঘ প্রায় ২ বছর অসুস্থ হয়ে চিকিৎসাধীন ছিল। তিনি পরিবার পরিজন নিয়ে দীর্ঘবছর বসবাস করে আসছেন। পরিবারের সবাই কানাডার নাগরিত্ব লাভ করে সেখানেই বসবাস করছেন। তিনি স্ত্রী,১ পুত্র ও ৩ মেয়ে রেখে গেছেন। তাকে কানাডায়ই দাফন দেয়া হবে তার পারিবারিক সূত্র জানায়।

ড.মিয়া আব্বাস উদ্দিনের উত্থান, ইতিহাস ও জীবন অনেক বনার্ঢ্যময়। মিয়া ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান মিয়া আব্বাস অত্র এলাকায় উন্নয়নে বেশ অবদান রেখে গেছেন। প্রতিষ্ঠা করেছেন অনেক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। তার মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো, মোরেলগঞ্জ রওশন আরা মহিলা ডিগ্রী মহাবিদ্যালয়, রওশন আরা স্মৃতি মাধ্যমিক বিদ্যালয়, সেতারা আব্বাস টেকনিক্যাল এন্ড বিজনেস ম্যানেজমেন্ট কলেজ, সেতারা আব্বাস টিটি কলেজ,মিয়া ফুয়াদ ইন্টারন্যাশনাল কিন্ডার গার্টেন, মানিক মিয়া দাখিল মাদ্রাসা,মানিক মিয়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় সহ বহু শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। সংসদ সদস্য থাকাকালীন তিনি মোরেলগঞ্জে উন্নয়নে অনেক অবদান রেখেছেন। সুন্দরবন জেলা বাস্তবায়ন ও আন্দোলনের রুপকার ছিলেন তিনি।

তার রাজনৈতিক জীবনও ছিল উত্থান পতন আর নানা প্রতিকূলতায়। তিনি ১৯৮৮ সালে স্বতন্ত্র্য প্রার্থী হিসেবে বাগেরহাট-৪ আসন থেকে সংসদ সদস্য নির্বাাচিত হন। এসময় তিনি সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসাইন মো. এরশাদ ও তার দলীয় নেতৃবৃন্দের সাথে সঙ্খতা গড়ে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান নির্মান সহ এলাকার উন্নয়নের চেষ্টা করেন। তিনি দীর্ঘদিন মোরেলগঞ্জ উপজেলা বিএনপির সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন।

২০১২ সালে জোটের হয়ে ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে সংসদ নির্বাচনে চেষ্টা করলেও আসন নেয় জামায়াত প্রার্থী। তাই নিয়ে জোটের দ্বন্ধ আর দলীয় গ্রæপিং ও তার বিরুদ্ধে যুদ্ধপরাধীর মামলার পর তিনি পুনরায় কানাডায় চলে যান। #

একই ধরনের আরও সংবাদ