অধিকার ও সত্যের পথে

 নাটোরে রুম টু রিডের এক্সিট এন্ড সাস্টেইন্যাবিলিটি কর্মশালা

 অমর ডি কস্তা:

 নাটোর কর্মরত আন্তর্জাতিক উন্নয়ন সংস্থা রুম টু রিড এর সাক্ষরতা কর্মসূচির আয়োজনে বুধবার দিনব্যাপী শহরের সাহারা প্লাজায় সদর উপজেলার ৩২টি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ও বিদ্যালয় ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতিদের অংশগ্রহণে এক্সিট এন্ড সাস্টেইন্যাবিলিটি বিষয়ক এক কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সংস্থার ফিল্ড ম্যানেজার মো. জয়নাল আবেদিনের স্বাগত বক্তব্যের মধ্য দিয়ে কর্মশালাটি শুরু হয়। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে সহকারী জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার এ কে এম আনোয়ার হোসেন, বিশেষ অতিথি হিসেবে সহকারী জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার রনোতোষ কুমার সেন, উপজেলা শিক্ষা অফিসার মো. আলী আশরাফ, সহকারী উপজেলা শিক্ষা অফিসার মো. চয়নুল ইসলাম, মো. শওকত আলম রতন, মোসা. মাহমুদা সিদ্দিকা, মো. জিয়ারুল হক, মো. শাহাদত হোসেন, মো. শাহাজাহান আলী মোল্লা, মো. জিল্লুর রহমান প্রমূখ বক্তব্য রাখেন।

সংস্থার ফিল্ড ম্যানেজার মো. জয়নাল আবেদিন বলেন, শিশু শিক্ষার্থীদের স্বাধীন পাঠক হিসেবে গড়ে তোলার লক্ষ্যে রুম টু রিড কাজ করছে। এই কাজে আন্তরিক সহযোগিতা অব্যাহত রাখার জন্য তিনি এসএমসি সভাপতি, প্রধান শিক্ষক ও সরকারী শিক্ষা কর্মকর্তা সকলকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান। তিনি আশা প্রকাশ করেন, রুম টু রিডের প্রদত্ত প্রশিক্ষন থেকে প্রাপ্ত অভিজ্ঞতা শ্রেণিকক্ষে প্রয়োগ করে শিশুদের পঠন দক্ষতা বৃদ্ধির ক্ষেত্রে শিক্ষকগণ আরও কার্যকর ভূমিকা রাখতে সক্ষম হবেন।

কর্মশালায় লিটারেসি প্রোগাম অফিসার (টেকনিক্যাল) খন্দকার মাসুদুল হাসান ২০১৪ সাল থেকে রুম টু রিডের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য, কার্যক্রম শুরুর প্রক্রিয়া, বিগত চার বছরের পারস্পরিক সহায়তা ও উপকরণ সহায়তার তথ্য উপস্থাপন এবং লিটারেসি প্রোগাম অপারেশন্স অফিসার মো: আব্দুল্লাহ-আল-মামুন স্থায়িত্বশীলতা পরিকল্পনা নিয়ে আলোচনা করেন।

শিক্ষন ও অভিজ্ঞতা নিয়ে অন্যদের মধ্যে আরো মত বিনিময় করেন মছিরন্নেছা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সুচিত্রা রানী দাম, তেলকুপি পাচানিপাড়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক আব্দুল্লাহ আল মামুন, মাঝদিঘা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক খন্দকার রাজিয়া সুলতানা, এসএমসি সভাপতি মো. সিরাজুল ইসলাম প্রমূখ।

প্রধান অতিথি তার বক্তব্যে বলেন, রুম টু রিড থেকে প্রাপ্ত প্রশিক্ষনলব্ধ জ্ঞানকে যেন আমরা ভুলে না যাই। শিক্ষার প্রতি শিশুদের আকর্ষণ বাড়াতে এই সংস্থার সফল ভূমিকার প্রশংসা তিনি করেন। কর্মশালার শেষে প্রধান অতিথি প্রতিটি বিদ্যালয়কে রুম টু রিডের শুভেচ্ছা ক্রেস্ট এবং ১ম ও ২য় শ্রেণির বাংলা বিয়য়ের শিক্ষকদের কাজের স্বীকৃতির জন্য সনদ পত্র প্রদান করেন।

উল্লেখ্য, রুম টু রিড এর সাক্ষরতা কর্মসূচির আয়োজনে গত ১৯ ডিসেম্বর নলডাঙ্গা উপজেলার ৮টি ও এর আগে ১০ ডিসেম্বর সিংড়া উপজেলার ৪০টি বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক, এসএমসি’র সভাপতি ও সরকারী কর্মকর্তাদের নিয়ে অনুরূপ কর্মশালা সম্পন্ন করেছে।

 

একই ধরনের আরও সংবাদ