অধিকার ও সত্যের পথে

 ঐতিহ্যের ধারক বাহক সাতক্ষীরার বল্লী মোঃ মুজিবুর রহমান মাধ্যমিক বিদ্যালয়

সাতক্ষীরা জেলার অর্ন্তগত সদর উপজেলায় মেহগনি ও কৃষ্ণচূড়ার লাল সবুজের মনোরম পরিবেশে ঘেরা ঐতিহ্যবাহী বল্লী মোঃ মুজিবুর রহমান মাধ্যমিক বিদ্যালয়টি ১৯৬৬ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়। বিদ্যাপীঠটির প্রতিষ্ঠাতা ডাক্তার শীতল প্রসাদ রায়। বিদ্যালয়টি জুনিয়র হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হলেও ০১/০১/১৯৭৩ খ্রীষ্টাব্দে বল্লী আদর্শ মাধ্যমিক বিদ্যালয় হিসেবে যশোর শিক্ষাবোর্ড কর্তৃক স্বীকৃতি লাভ করে।

১৯৭৪ হতে ১৯৭৭ খ্রীঃ এর মধ্যে শিক্ষা বোর্ড কর্তৃক প্রতিষ্ঠানটি পর্যায়ক্রমে বিজ্ঞান, বানিজ্য ও কৃষি বিভাগ খোলার অনুমতি পায়। মুকুন্দপুর গ্রামের পন্ডিত বাড়ির সন্তান বিশিষ্ট শিল্পপতি দানশীল, শিক্ষানুরাগী ও ধনাঢ্য ব্যাক্তি জনাব এ,বি,এম মোশাররফ হোসেন তৎকালীন ষোল লক্ষ টাকা ব্যয়ে বিদ্যালয়ের মূল ভবন (১০টি কক্ষ) নির্মান করেন। ফলে বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটি, অভিভাবকবৃন্দ ও এলাকাবাসীর অতি উৎসাহ এবং প্রস্তাবের প্রেক্ষিতে এ,বি,এম মোশাররফ হোসেনের পিতা মোঃ মুজিবুর রহমান সাহেবের নামে ১১/০৯/১৯৮৫ খ্রীষ্টাব্দে যশোর মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড কর্তৃক বিদ্যালয়টির নামকরন অনুমোদিত হয়। তৎসময় হতে প্রতিষ্ঠানটি বল্লী মোঃ মুজিবুর রহমান মাধ্যমিক বিদ্যালয় হিসেবে আখ্যায়িত হয়।

   ২০০৩ সালে বাংলাদেশ কারিগরী শিক্ষা বোর্ড কর্তৃক প্রতিষ্টানে কারিগরী (ভোক) শাখা সংযুক্ত হয়। বর্তমানে প্রতিষ্ঠানটিতে (বিভিন্ন শাখা সহ) ২২ জন শিক্ষক, ০১ জন সহকারী গ্রন্হাগারিক, ০১ জন অফিস সহকারী ও ০২ জন ৪র্থ শ্রেনীর কর্মচারী এবং কারিগরী শাখার ১০ জন শিক্ষক ল্যাব সহকারী সহ মোট ৩৬ জন শিক্ষক কর্মচারী আছে। প্রতিষ্ঠানটি এস.এস.সি পরীক্ষায় শতভাগ উত্তীর্ণের কৃতিত্ব বহন করে। স্কাউট ও সহ পঠ্যক্রম কার্যাবলী সহ শিক্ষার্থীদের শারীরিক, মানসিক ও সামাজিক গুনাবলীর বিকাশ সাধনে প্রতিষ্ঠানটি সার্বক্ষনিক তৎপর।

বর্তমানে ২.১৮ একর জমির উপর প্রতিষ্ঠিত এ বিদ্যাপিঠে ৩০ টি পাকা কক্ষ, সাইকেল গ্যারেজ, মসজিদ, পাঠাগার, ৯টি কম্পিউটার সম্বলিত কম্পিউটার ল্যাব, বিজ্ঞানাগার, হারমোনিয়াম, তবলা ইত্যাদি সরঞ্জামাদির সাহায্যে প্রায় ১০০০ জন শিক্ষার্থীকে আধুনিক পদ্ধতিতে পাঠদান এবং ফলশ্রুতিতে পাবলিক পরীক্ষাগুলোতে শতভাগ পাশসহ সহপাঠক্রম কার্যাবলীতে দৃষ্টান্তমূলক কৃতিত্বের স্বাক্ষর বহন করে আসছে।

একই ধরনের আরও সংবাদ