অধিকার ও সত্যের পথে

লক্ষ্মীপুরের ঐতিয্যবাহী স্কুল বাংগাখাঁ উচ্চ বিদ্যালয়

বাংগাখাঁ উচ্চ বিদ্যালয়টি লক্ষ্মীপুর জেলার সদর উপজেলাধীন ০৬ নং বাংগাখাঁ ইউনিয়নের বাংগাখাঁ গ্রামে অবস্থিত। এটি অত্র এলাকার একটি সুপরিচিত বিদ্যালয়।
বাংগাখাঁ উচ্চ বিদ্যালয়টি লক্ষীপুর জেলা সদরের ৫ কিলোমিটার পূর্বে ঢাকা রায়পুর মহাসড়কের পাশে মনোরম পরিবেশে অবস্থিত। বিদ্যালয়টি ১৯২৭ খ্রিঃ-এ এম.ই স্কুল হিসেবে প্রতিষ্ঠা লাভ করে। স্থানীয় বিদ্যোৎসাহী ব্যক্তিগনের উদ্যোগে ১৯৬৫ খ্রিঃ-এ জুনিয়র হাই স্কুল এবং ১৯৬৭ খ্রিঃ-এ হাই স্কুলে উন্নীত হয়। ১২৮ শতাংশ জমিনে পাকা , অধাপাকা ও কাঁচা ভাবনে পঞ্চাশ শতাংশেরও বেশী ছাত্রী নিয়ে প্রায় সহস্রাধিক শিক্ষার্থী নিয়ে বিদ্যালয়ে সহশিক্ষা চালু আছে। বিদ্যলয়ের সন্মূখস্থ বিশাল মাঠ শিক্ষার্থীদের খেলাধুলার অনুশীলন ছাড়াও স্থানীয় জনসাধারনের ধর্মীয় , সামাজিক ও সাংস্কৃতিক মিলনের স্থান। মাঠের পার্শ্বে নির্মিত মহান স্বাধীনতা যুদ্ধের শহীদের স্মৃতি বিজড়িত শহীদ মিনারটি প্রতি বছর জাতীয় দিবস সমূহে স্থানীয় জনসাধারনের শ্রদ্ধায় নিবেদিত ফুলে ফুলে ভরে উঠে। ম্যানেজিং কমিটির তত্ত্বাবধানে সব স্তরের জনসাধারনের সহযোগিতা দক্ষ ও সুযোগ্য শিক্ষক মন্ডলী দ্বারা পরিচালিত বিদ্যালয়টিতে মানসম্মত শিক্ষা ব্যবস্থা চালু আছে। পাবলিক পরীক্ষা সমূহে ভাল ফলাফল , ক্রীড়া ও সংস্কৃতিক অঙ্গনে শিক্ষাথীদের ব্যাপক অংশগ্রহণ ও সফলতা , একটি সংশৃঙ্খল স্কাউট দল ও রেড ক্রিসেন্ট দলের সেবা বিদ্যালয়টির ঐতিহ্যের পরিচায়ক।
বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. নিজাম উদ্দীন তার বানীতে বলেন
ব্যাক্তি, পরিবার, সমাজ তথা জাতীয় জীবনে সামগ্রীক অগ্রগতি ও উন্নয়নের মূলে রয়েছে শিক্ষা। “শিক্ষা জাতীর ভবিষ্যৎ উন্নতির চাবিকাঠি এবং দক্ষ জনশক্তি সৃষ্টির জন্য গুরুত্বপূর্ণ হাতিয়ার”। শিক্ষা ব্যক্তিকে তাঁর ব্যক্তিত্বের পরিপূর্ণ বিকাশে সহায়তা করে। তাই প্রত্যেক শিক্ষার্থী পরিবার, সমাজ, কর্মজীবনের উপযোগি হয়ে গড়ে উঠতে হলে তাকে সমাজ ও রাষ্ট্রীয় আদর্শ, তাঁর মৌলিক বিশ্বাস, নৈতিক মূল্যবোধ, সংস্কার, আচার – আচরণ, রীতিনীতি ইত্যাদির সাথে পরিচিত হতে হয়। আর শিক্ষা তথা বিদ্যালয়ের মাধ্যমেই তা সংঘঠিত হয়। শিক্ষা মানুষকে উচ্চতর পর্যায়ে সংগতি বিধান ও প্রতিষ্ঠিত হওয়ার ক্ষমতা প্রদাণ করে। তাই প্রত্যেক শিক্ষার্থীকে তাঁর অর্জিত শিক্ষার মৌলিক জ্ঞান ও দক্ষতা সম্প্রসারিত ও সুসংহত করার মাধ্যমে উচ্চ শিক্ষার যোগ্য করে তোলাই হচ্ছে বিদ্যালয়ের মূল লক্ষ্য। দ্রুত পরিবর্তনশীল বিশ্বের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করার জন্য প্রয়োজন বৈজ্ঞানিক ও প্রযৌক্তিক জ্ঞান, কলাকৌশল আহরণ করা এবং বাস্তব জীবনে বিভিন্ন কর্মকান্ডে প্রয়োগ করে জীবন মান উন্নত করে গড়ে তোলা। তাছাড়া তোমাদের মধ্যে থাকতে হবে নৈতিক ও মানবিক মূল্যবোধ থেকে শুরু করে দেশ প্রেমবোধ এবং ধর্ম – বর্ণ – গোত্র নির্বিশেষে সবার প্রতি সমমর্যদাবোধ।
একজন শিক্ষার্থীকে সুশিক্ষায় শিক্ষিত করতে হলে শিক্ষার্থী, শিক্ষক ও অভিভাবকের মধ্যে গভীর সম্পর্ক থাকা অতীব জরুরী। বর্তমান তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তির যুগে এই ওয়েব সাইটটি সেই সম্পর্ককে আরো গভীর করবে বলে আমি মনে করি।
অত্র বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা সুশিক্ষায় শিক্ষিত হয়ে এই বিদ্যালয়ের গন্ডি ফেরিয়ে উচ্চ শিক্ষা প্রহণের মাধ্যমে দেশ জাতির কল্যানে নিজেকে নিয়োজিত করবে বলে আমি আশাকরি।
বিদ্যালয়টিতে প্রতি বছরই ভালো ফলাফল করে আসছে।
বিদ্যালয়টিতে বর্তমানে ১৩ জন শিক্ষক, ২ জন তৃতীয় শ্রেণির ও ২ জন চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারী এবং ২ জন খন্ডকালীন শিক্ষক/কর্মচারী নিয়োজিত আছেন।
বিদ্যালয়টিতে বাংলাদেশ সরকারের তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের শেখ রাসেল ডিজিটাল ল্যাব প্রতিষ্ঠিত হওয়ার করণে উক্ত বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা আইসিটি সুবিধা পাচ্ছে। বিদ্যালয়টিতে শিক্ষকরা যথাযথভাবে মাল্টিমিডিয়া ক্লাস পরিচালনা করছেন।
বাংগাখাঁ উচ্চ বিদ্যালয়ে বিশ্বসাহিত্য কেন্দ্র ঢাকা অধীনে বই পড়া কর্মসূচি পরিচালিত হচ্ছে এবং এই জন্য অত্র বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা বই পড়ার প্রতি মনোনিবেশ করতে পারচ্ছে।
একই ধরনের আরও সংবাদ