ঢাকা, ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৭, ৯ আশ্বিন, ১৪২৪

ইমেইলঃ shikshabarta@gmail.com

শাহরাস্তির ফেরুয়া মাদ্রাসায় বৃত্তির টাকা আত্মসাৎ : সুপারিন্টেনডেন্ট পলাতক

মো : নজরুল ইসলাম ভূঁইয়া, শাহরাস্তি উপজেলা করেসপন্ডেন্ট । | আগস্ট ২০, ২০১৭ - ৭:৩২ অপরাহ্ণ


চাঁদপুরের শাহরাস্তি উপজেলায় বৃত্তির অর্থ জালিয়াতির ঘটনা ঘটেছে । ফেরুয়া কাদেরিয়া ইসলামিয়া দাখিল মাদ্রাসায় এ ঘটনা ঘটে । সরাসরি সুপারিন্টেনডেন্ট হুমায়ুন কবির আত্মসাথের মূল নায়ক ।
এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ সূত্রে জানা যায় যে,  ২০১০ সাল থেকে ২০১৭ সাল পর্যন্ত উক্ত মাদ্রাসার এবতেদায়ী সমাপনী, জেডিসি ও দাখিল পরীক্ষার বৃত্তির ফলাফল কখনো প্রকাশিত হয়নি । প্রতি বছর বৃত্তির ফলাফল শূন্য দেখানো হয়েছে ।
ঘটনাক্রমে এ বছর ৬ নং  ওয়ার্ড মেম্বার হুমায়ুন আহমেদ বিষয়টি উপলব্ধি করেছেন । গত ১০/১২ দিন পূর্বে ব্যাংকে হুমায়ুন আহমেদ মেম্বারের
সাথে মাদ্রাসার সুপারিন্টেনডেন্ট মাওলানা হুমায়ুন কবিরের সাথে সাক্ষাত হয় । এতে ওয়ার্ড মেম্বার তার হাতে শিক্ষা বৃত্তির ৭০,০০০/- (  সত্তর হাজার ) টাকার বিল দেখতে পান ।
এরপর তিনি এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ও বিশিষ্ট জনদের সাথে এ বিষয়ে কথা বলেন ।
অনলাইনে ২০১৭ সালের জেডিসি ও এবতেদায়ী  বৃত্তির ফলাফল বের করেন এলাকার তরুণ সমাজ । এতে দেখা যায় শুধু ২০১৭ সালে জেডিসি ও এবতেদায়ী সহ একত্রে ৯ জন বৃত্তি পান । এর মধ্যে একজন পান ট্যালেন্টপুলে বৃত্তি । এই দিকে বিগত বছর গুলোর পর্যালোচনা ও অনলাইন ফলাফল থেকে জানা যায় , ২০১০ সাল থেকে এই পর্যন্ত তিনটি শ্রেণিতে আনুমানিক ৪০/৫০   জন  বৃত্তি পান  । কিন্তু কোনো ছাত্র/ছাত্রী তথা কোনো অভিভাবক তা জানেননা । দারিদ্র্যতার কারণে এই বছর এক শিক্ষার্থী পড়া-লেখা ছেড়ে দেয় । গত দুই দিন আগে জানা যায়  ছেলেটি ট্যালেন্টপুলে বৃত্তি পেয়েছে ।
মাদ্রাসার শিক্ষক ও এলাকাবাসী সূত্র ও প্রমাণ সাপেক্ষে দেখা যায় যে, ২০১০ সাল থেকে ২০১৭ সাল পর্যন্ত  বৃত্তি বাবদ মোট ৮,৫০,০০০/- (আট লক্ষ পঞ্চাশ হাজার ) টাকা সুপার আত্মসাৎ করেন ।

আজ ২০/০৮/২০১৭ তারিখ দুপুর দুইটা বাজে এলাকাবাসী বিষয়টি মাদ্রাসায় জানতে আসলে সুপারিন্টেনডেন্ট কাউকে কিছু না বলে পালিয়ে যান ।
এই দিকে এলাকায় ক্ষোভ ও চাঞ্চল্যকর পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে ।

শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য দিন

Mobile Version