ঢাকা, ২৩ মে, ২০১৭, ৯ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৪

ইমেইলঃ shikshabarta@gmail.com

স্কুল শিক্ষিকার পর্ণোগ্রাফী মামলায় প্রতারক প্রেমিক গ্রেফতার

নিজস্ব প্রতিবেদক | জানুয়ারি ৬, ২০১৭ - ৭:৩৯ অপরাহ্ণ


এম. সুরুজ্জামান, শেরপুর প্রতিনিধি: শেরপুরের নকলা উপজেলার স্বামী পরিত্যক্তা এক স্কুল শিক্ষিকাকে প্রেমের ফাঁদে ফেলে পর্ণোগ্রাফী করায় ভোক্তভোগী ওই প্রতারক প্রেমিকের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে। মামলায় সুমেন কুমার নাথ উরফে সুমেন আহম্মেদ নামের প্রতারক প্রেমিককে বৃহস্পতিবার গ্রেফতার করেছে থানা পুলিশ।

থানা পুলিশ জানায়, উপজেলার বাছুর আলগা গ্রামের স্বামী পরিত্যক্তা তরুণী এক স্কুল শিক্ষিকার সাথে ফেসবুকের মাধ্যমে সুমেন কুমার নাথ উরফে সুমেন আহম্মেদ নামে এক প্রতারক প্রেমিকের পরিচয় ঘটে। পরিচয়ের সূত্র ধরে উভয়ের মাঝে পরকীয়ার সম্পর্ক গড়ায়। এরই একপর্যায়ে গত বছরের ২৯ এপ্রিল সুমেন নিজেকে মুসলিম পরিচয় দিয়ে ওই শিক্ষিকাকে বিয়ের কথা বলে ময়মনসিংহের একটি হোটেলে নিয়ে যায় এবং স্বামী-স্ত্রী পরিচয়ে ওঠে। সেখানে সুমেন কৌশলে মোবাইল ফোনের ভিডিও চালু করে ওই শিক্ষিকার সাথে বিবাহপূর্ব মেলামেশা করতে যায়। অন্তরঙ্গের একপর্যায়ে সুমেনের ধর্ম পরিচয় টের পেয়ে গেলে প্রেমিকা শিক্ষিকা সুমেনকে বাধা প্রদান করে এবং পরে চলে আসে।

এরপর থেকে প্রতারিত শিক্ষিকা সুমেনের সাথে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন করে। এতে সুমেন মোবাইলে ধারণকৃত আপত্তিকর চিত্র ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দিবে বলে তাকে ভয় দেখাতে শুরু করে এবং তার কাছে ৩ লাখ টাকা দাবী করে। পরে ওই শিক্ষিকা নিরুপায় হয়ে নকলা থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন, পর্ণোগ্রাফী আইন এবং তথ্য যোগাযোগ ও প্রযুক্তি আইনে মামলা দায়ের করেন। মামলা দায়েরের পর নকলা থানা পুলিশ দীর্ঘদিন যাবত ওই প্রতারককে খুঁজে ফিরছিল। একপর্যায়ে গত ৫ জানুয়ারী বৃহস্পতিবার দুপুরে ময়মনসিংহ জেলার মুক্তাগাছা থানাধীন অষ্টধর বাজার থেকে প্রতারক সুমেনকে গ্রেফতার করে জেলহাজতে প্রেরণ করে। এ ঘটনায় এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

সূত্র আরো জানায়, চট্টগ্রাম জেলার পাচলাইশ থানার সাধন কুমার নাথের পুত্র সুমন কুমার নাথ উরফে সুমেন আহেম্মদ পেশায় একজন চিকিৎসক ছিল। বর্তমানে সে বেকার অবস্থায় ঘুরাফেরা করে নিজেকে বিভিন্ন এলাকায় কখনও প্রকৌশলী, কখনও আইনজীবি, কখনও চিকিৎসক পরিচয় দিত। কখনও সে মুসলিম কখনও বা হিন্দু পরিচয় দিয়ে মেয়েদের সাথে গড়ে তুলত প্রেমের সম্পর্ক। এরপর তাদের সাথে মেলামেশা করে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে ওইসব দৃশ্য কৌশলে ভিডিও ধারণ করত এবং প্রতারণার মাধ্যমে মোটা অঙ্কের টাকা হাতিয়ে নিত।

এ ব্যাপারে নকলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) গোলাম হায়দার ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য দিন

Mobile Version