ঢাকা, ২৩ মে, ২০১৭, ৯ জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৪

ইমেইলঃ shikshabarta@gmail.com

এত্তো জিপিএ-৫ যায় কোথা ? 

নিজস্ব প্রতিবেদক | জানুয়ারি ৬, ২০১৭ - ৭:৪৭ অপরাহ্ণ


অধ্যক্ষ মুজম্মিল আলী
দেশটা দিনে দিনে জিপিএ-৫ এ ভরে যাচ্ছে ! এত্তো জিপিএ-৫ ! রেজাল্ট বেরুলে মানুষ এখন আর জিপিএ-৫ এর খবর জানতে কৌতুহল বোধ করে না। ক’জন ফেল করেছে- সে খবরটা আগে জানতে চায় । ফেল  এখন কদাচিত ! এর হিসেবটা অনেক ছোট । জিপিএ-৫’র হিসেব অনেক বড় হয়ে গেছে ! এসএসসি আর এইচএসসি’র সাথে পিইসি ও জেএসসি পরীক্ষা দু’টো যোগ হওয়ায় আমাদের জিপিএ-৫ এর বহর অনেক বেড়ে গেছে । প্রায় সারা বছর জিপিএ-৫ এর জোয়ারে ভাসে পুরো দেশ । আমাদের শিক্ষায় অনেক উন্নতি হয়েছে বটে , কিন্তু মৌলিক উন্নতি কতটুকু কী হয়েছে ?
সে দিন ফেসবুকে জনৈক শিক্ষকের একটা স্ট্যাটাস পড়লাম। তিনি লিখেছেন, ‘আমার যে ছাত্রটি স্কুলের কোন পরীক্ষায় গণিত বিষয়ে কোনদিন ১৫ নম্বর পায় নাই, সে এবার সব বিষয়ে ‘এ +’ পেয়েছে।’ জিপিএ-৫ পাওয়াটা এখন বড় বেশী সহজ । যা সহজে পাওয়া যায়, তার মূল্য থাকে না । ফেল করাটা আজকাল  এক কঠিন কাজ ।এ ক’জনের ভাগ্যে জুটে (?)। ১৯৯২-৯৩ শিক্ষাবর্ষে কুমিল্লা টিচার্স ট্রেনিং কলেজে বিএড ক্লাসের উদ্ধোধনী অনুষ্ঠানে শ্রদ্ধেয় কাসেম স্যার রসিকতা করে বিএড প্রশিক্ষণ প্রসঙ্গে বলেছিলেন, ‘এখানে তিনটি কাজ বড় কঠিন । এক. ডাল খাওয়া । দুই.বিএড পরীক্ষায় ফার্স্ট ক্লাস পাওয়া । তিন.বিএড পরীক্ষায় ফেল করা।’ বড় জ্ঞানী মানুষ ছিলেন কাসেম স্যার । সামান্য ক’দিন পর নায়েমে পরিচালক হয়ে ময়মনসিংহ চলে যান। যাক ,বলছিলাম আমাদের পরীক্ষায় যেন আজকাল কাসেম স্যারের সে ‘তিন নম্বর’ কঠিন কাজটিই চলছে !
সর্বপ্রথম যে বছর গ্রেডিং পদ্ধতিতে এসএসসি’র রেজাল্ট হয় , সে বছর দেশের সকল বোর্ড মিলে মোট কতটি ‘জিপিএ-৫’ পেয়েছিল ? আর এ বছর একেক বোর্ডে কত জনে পেয়েছে  ?
আমাদের শিক্ষায় আমরা কী আলাদীনের চেরাগ পেয়ে গেছি ? রাতারাতি জিপিএ-৫’ এ দেশটা  ভরে যাচ্ছে । এ ক’বছরে  আমাদের দেশ কত জিপিএ-৫ পেয়েছে । এত সব জিপিএ-৫ গেল কোথায় ? এতো জিপিএ-৫, অথচ  আমাদের মেধার বড় অভাব। মেধার আকাল ও দূর্দিন চলছে আমাদের । মেধায় আমাদের এ দূর্দশা আর কতকাল চলবে ?
গ্রেডিং পদ্ধতিতে রেজাল্ট চালু হবার আগে বোর্ড পরীক্ষার রেজাল্টে মেধা তালিকা প্রকাশ করা হতো । দেশ সেরা মেধাবীদের প্রতি দৃষ্টি যেত সবার।
এখন সেটি করা হয় না । আমাদের দৃষ্টিভঙ্গি দিনে দিনে বদলে যাচ্ছে । একদিন হয়ত  যারা ফেল করবে , তাদেরই মেধাক্রম করে জাতিকে জানানো হবে । আমরা কী সে দিকে এগিয়ে যাচ্ছি ? এ পথটি মোটে ও সঠিক পথ নয় ।
লেখক : অধ্যক্ষ, চরিপাড়া উচ্চ বিদ্যালয় ও কলেজ, কানাইঘাট, সিলেট।  
শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য দিন

Mobile Version