অধিকার ও সত্যের পক্ষে

রামগতিতে শিক্ষকের বিরুদ্ধে দুনীতির অভিযোগ

রামগতি: উপজেলার পোঁড়াগাছা ইউনিয়নের হাজী এ গফুর উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আবদুজ্জাহের এর বিরুদ্ধে অর্থ আত্মসাত ও বিদ্যালয় পরিচালনায় অনিয়মের অভিযোগ উঠেছে। ব্যাপক অনিয়ম-দূর্ণীতির পরেও তিনি কোন ক্ষমতার বলে দাম্ভিকতার সাথে দায়িক্ত পালন করছেন প্রশ্ন মনোজিং কমিটির সদস্য ও সাধারন মানুষের। এই নিয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, জেলা প্রসাশক, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসসহ শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন ওই প্রতিষ্ঠানের ম্যানেজিং কমিটির সদস্য বৃন্দ।

অভিযোগে জানা যায়, দীর্ঘদিন থেকে হাজী এ গফুর উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আবদুজ্জাহের শিক্ষার্থীদের উপবৃত্তির, খোলাধুলা, কোচিং বানিজ্য ও বিভিন্ন পরিক্ষার ক্ষাত দেখিয়ে লক্ষ লক্ষ টাকা আত্মসাৎ করেন এই শিক্ষক। স্কুলের টয়লেট, ওয়াটার পাম্প পুরাতন মোরামত করে নতুনের খরচ দেখিয়ে সম্পূর্ন টাকা আত্মসাৎ করেছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।
বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটিকে ৩০ অক্টোবর হইতে ৩১ ডিসেম্বর-২০১৪ পর্যন্ত কোন হিসাব দেননি এবং জানুয়ারি থেকে জুন-২০১৫ পর্যন্ত স্কুলের আয়ের কোন হিসাব না দিয়ে বর্তমানে নতুন ডিডে মনেজিং কমিটির স্বাক্ষর ছাড়া জনতা ব্যংকে জমা দিয়ে টাকা উত্তোলন করার হুমকী দেন। কমিটির আদেশ না মানিয়ে নিজের খেয়াল খুশি মতো কাজ করে এবং কমিটির সাথে অপমানিত আচরণ করে এই শিক্ষক। বিদ্যালয়ে প্রতিটি শিক্ষক নিয়োগে ২০ হাজার টাকা খরচ দেখিয়েও টাকা আত্মসাৎ করনে তিনি।

প্রধান শিক্ষক আবদুজ্জাহের জানান, উপরোক্ত সব অভিযোগ গুলো মিথ্যা। মনোজিং কমিটির সদস্য মোঃ আলী হোসেন, মোঃ শরাফ উদ্দিনসহ তাদের তিন জনের পচন্দের লোককে বিদ্যালয়ে নিয়োগ না দেওয়া তারা ক্ষিপ্ত হয়ে আমার বিরুদ্ধে বিভিন্ন সরকারী দপ্তরে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। তিনি আরো বলেন, মাসিক মিটিং ঠিকমতই হচ্ছে। অনুদানের সকল অর্থই উন্নয়নে ব্যয় করা হয়েছে।

এ বিষয়ে বিদ্যালয়ের বর্তমান ম্যানেজিং কমিটির সদস্য শরাফ উদ্দিন সারু জানান, শিক্ষক নিয়োগের বিষয় আমার কোন অভিযোগ নেয়। তবে রমজান মাসে বিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীদের কোচিং ফ্রি ২০০ টাকার পরিবর্তে তাদের কাছ থেকে ৫০০ টাকা করে আদায় করা এবং স্কুলের মোটা অংকের টাকা আত্মসাৎতের অভিযোগ রয়েছে।

বিদ্যালয়ের আরোক ম্যানেজিং কমিটির সদস্য মোঃ আলী হোসেন জানান, স্কুলের কোন কাজ না করিয়ে ভুয়া ভাউচার করে প্রতিষ্ঠানের টাকা আত্মসাৎ করে আসছে এই প্রধান শিক্ষক।

উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা এবি এম হান্নান জানান, প্রধান শিক্ষক আবদুজ্জাহেরের বিরুদ্ধে একটি অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত করে অনিয়ম পেলে তার বিরুদ্ধে আইনুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

একই ধরনের আরও সংবাদ